সঙ্গিনীকে আরও কাছে এনে দিতে নতুন অফার দিচ্ছে ডেটিং অ্যাপ টিন্ডার
টিন্ডার লোগো(Photo Credit; Twitter)

প্রিয় থেকে প্রাণের বন্ধু, সবাইকেই খুঁজে নিতে পারেন এই অ্যাপসে। কখনও চোখের দেখাতেই প্রেম আবদ্ধ থাকে, কখনও সেই প্রেম জল গড়িয়ে যে কতদূর পড়ে তা একমাত্র প্রেমিক প্রেমিকাদেরই জানা আছে। সেই অ্যাপসের তালিকায় অন্যতম হল টিন্ডার (Tinder), এবার এই প্রথম ফিচার্স ‘সুপার বুস্ট’ ও ‘রিড রিসিপ্ট’ মিলবে টিন্ডারে। জনপ্রিয় এই ডেটিং অ্যাপ এবার নতুন দুই আকর্ষণীয় ফিচার্সের দৌলতে অনলাইন বন্ধুত্বের দুনিয়ায় ঝড় তুলবে তা বলাইবাহুল্য।

উল্লেখ্য, ২০১১-তে এই ডেটিং অ্যাপ টিন্ডার বাজারে আসতেই তা নেটিজেনদের মধ্যে প্রচুর জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। সামনাসামনি না দেখেই নিজের মনের মতো সঙ্গী বেছে নিতেই এই অ্যাপের জুড়ি মেলা ভার। কোনও ব্যক্তিকে পছন্দ হলে তাঁর প্রোফাইলে গিয়ে ‘রাইট সোয়াইপ’। আর পছন্দ না হলে ‘লেফট সোয়াইপ’। দু’জনেরই যদি একে অপরকে পছন্দ হয় তা হলেই কেল্লাফতে! সাম্প্রতিক কালে ভারতেও এই অ্যাপটির জনপ্রিয়তা আকাশ ছুঁয়েছে। যদিও বিভিন্ন সময়ে নানান সমালোচনার মুখেও পড়েছে টিন্ডার কর্তৃপক্ষ। কতটা কার্যকরী হবে এই নতুন ফিচার্স? সে অপেক্ষায় আপাতত টিন্ডারপ্রেমীরা।

এদিকে টিন্ডার কর্তৃপক্ষের অশিয়াল ব্লগের তথ্য বলছে, যাঁরা আগে থেকেই অ্যাপের টিন্ডার-প্লাস এবং টিন্ডার-গোল্ড সদস্য, তাঁর নতুন ফিচার সুপার বুস্টের (Super Boost) মাধ্যমে বেশকিছু সুবিধা পেতে চলেছেন। তাঁদের প্রোফাইল আগের থেকে এবার প্রায় ১০০ গুণ বেশি দৃশ্যমান হবে। ফলে টিন্ডার-ম্যাচিংয়ের সম্ভাবনাও অনেকটা বাড়বে। এককথায় নিজেকে শোকেস করার বড় সুযোগ পেয়ে যাবেন অ্যাপ ব্যবহারকারীরা। একইভাবে ‘রিড রিসিপ্ট’ (Read Receipt) ফিচার্সের মাধ্যমে কে বা কারা আপনার পাঠানো মেসেজ পড়ছেন বা পড়ছেন-না, এ বার তা-ও জানতে। তবে এই সুযোগ শুধু টিন্ডার-প্লাস এবং টিন্ডার-গোল্ড সদস্যরা পাবেন এমনটা নয়। এক্ষেত্রে বাকি ব্যবহারকারীদেরও থাকছে সুযোগ।

বলা বাহুল্য, হোয়াটস্‌অ্যাপ, ফেসবুক মেসেঞ্জারে এই ফিচার্স আগেই চালু ছিল। কিন্তু টিন্ডারে এই প্রথম। তবে কোন কোন দেশের টিন্ডার ব্যবহারকারীরা এই ফিচার্সের সুবিধা পাবেন, তা এখন জানা যায়নি। তবে সে যাইহোক না কেন ভার্চুয়াল গেম  বা ভার্চুয়াল প্রেম,  টিন্ডার ছাড়া গতি নেই।