Cyclone Tauktae: শক্তি বাড়িয়ে ধেয়ে আসা ঘূর্ণিঝড়ে জারি সতর্কতা, কেরলে ব্যাপক বৃষ্টি

শক্তি বাড়িয়ে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় 'তৌকতাই' (Cyclone Tauktae)। মাঝ সমুদ্রে যেভাবে শক্তি বাড়িয়েছে এই ঝড় তাতে আগামী মঙ্গলবারের মধ্যে গুজরাট (Gujrat) উপকূলে বেশ তাণ্ডব চালিয়ে আছড়ে পড়তে পারে 'তৌকতাই'। প্রস্তুত রাখা হয়েছে বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীকে। একে করোনার ঢেউ, তার মাঝে 'তৌকতাই'ঘূর্ণিঝড়-প্রশাসন জোড়া সমস্যায় জেরবার। তৌকতাই'-এর প্রভাবে কেরলে গভীর নিম্নচাপের সৃষ্টি হয়েছে। কোচি সহ রাজ্যের বিভিন্ন অংশে ব্যাপক বৃষ্টিপাত হচ্ছে। মালাপ্পুরাম জেলায় লাল সতর্কতা জারি করা হয়েছে। ব্যাপক বৃষ্টির প্রভাবে কেরলের বিভিন্ন জায়গায় জল জমে গিয়েছে। ব্যাপক বৃষ্টি হচ্ছে কর্ণাটকের বিভিন্ন জায়গাতেও। কেরলের কিছু জায়গায় বন্যা পরিস্থতিও তৈরি হয়েছে।

আরও পড়ুন:  CM Mamata Banerjee's Brother Passed Away: করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রয়াত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের মেজ ভাই

লাক্ষাদ্বীপ উপকূলে ও দক্ষিণ-পূর্ব আরব সাগরে ঝোড়ো হাওয়া বইতে শুরু করেছে। গুজরাট, লাক্ষাদ্বীপ কেরল, কর্ণাটক, তামিলনাড়ু উপকূলের পাশাপাশি গোয়া এবং মহারাষ্ট্র উপকূলেও সমুদ্র উত্তাল হয়েছে।

কোচির উত্তর-পশ্চিম উপকূলে শুক্রবার তা আরও শক্তিশালী হয়েছে। শনিবার সকালে তা অতি শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে। জরুরি অবস্থায় স্থানীয় প্রশাসনের পাশাপাশি প্রস্তুত আছে দেশের নৌসেনাও। নৌসেনার পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, জাহাজ, হেলিকপ্টার, বিমান, ডাইভিং ও জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দল (NDRF)-কে সব রকম পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত রাখা হয়েছে। কেরালা, কর্ণাটক, তামিলনাড়ু এবং মহারাশটর-দেশের এই পাঁচটি রাজ্যে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা দলের ৫০টিরও বেশি দল কাজ করছে। মৌসম ভবনের পূর্বাভাস, কচ্ছ সহ দক্ষিণ পাকিস্তানের দিকে ধীরে ধীরে যেতে পারে ঘূর্ণিঝড়। ১৭ মে থেকেই গুজরাটে শুরু হতে পারে বৃষ্টি। এরপর ১৮ মে ভারী থেকে অতিভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।