এবার পর্যটকদের জন্য উন্মুক্ত বিশ্বের সর্বোচ্চ যুদ্ধক্ষেত্র সিয়াচেন হিমবাহ, যাবেন নাকি?
সিয়াচেন হিমবাহ (Photo Credit: ANI)

লাদাখ, ২১ অক্টোবর: লাদাখকে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে ঘোষণার ঠিক একমাস পরে পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হল সিয়াচেন গ্লেসিয়ার। সোমবার কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেন, সিয়াচেন হিমবাহ এখন থেকে পর্যটক ও পর্যটন সংস্থাগুলির জন্য উন্মুক্ত। সিয়াচেন বেস ক্যাম্প থেকে কুমার পোস্ট পর্যন্ত এলাকায় পর্যটকরা যেতে পারবেন। লাদাখ সফর কালেই সোমবার ২১ অক্টোবর এই ঘোষণা করেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রী। পূর্ব লাদাখের দুরবুক এবং দৌলত বেগ ওল্ডির মধ্যে নির্মিত কর্নেল চিওয়াং রিঞ্চেন সেতুর (Rinchen Bridge) উদ্বোধন করতে লাদাখে এসেছেন রাজনাথ সিং। যাওয়ার আগে এক টুইট করেন রাজনাথ সিং(Rajnath Singh)।

সেখানে প্রতিরক্ষামন্ত্রী বলেছেন, “জেনারল বিপিন রাওয়াতকে সঙ্গে নিয়ে দিল্লি ছাড়ছি। আপাতত গন্তব্য লাদাখ। স্থানীয় শ্যাওক নদীর উপরে তৈরি হয়েছে এক সেতু, সেই সেতুর উদ্বোধনেই মূলত লাদাখ সফর।” বলা বাহুল্য, সিয়াচেন হিমবাহ আসলে লাদাখের অংশ। আর গোটা লাদাখটাই এতদিন কাশ্মীরের অংশ হিসেবে ছিল। তবে গত ৫ আগস্ট কাশ্মীরের বিশেষ স্টেটাস খর্ব করেছে কেন্দ্র। একই সঙ্গে ৩৭০ ধারা ও ৩৫-এর এ ধারাউ বিলুপ্ত করে দেওয়া হয়েছে। এবং ওই দিন থেকেই পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখ। আরও পড়ুন-৩৭০-এর গেরো, দুই দেশের মধ্যে ডাক পরিষেবা বন্ধ করায় পাকিস্তানকে একহাত নিল ভারত

উল্লেখ্য, সিয়াচেন হিমবাহ হল বিশ্বের সবথেকে উঁচু যুদ্ধক্ষেত্র। সারা বছর ভারতীয় সেনা হিমবাহের হাড়কাঁপানো ঠান্ডার ভ্রূকুটি অগ্রাহ্য করেই সীমান্ত রক্ষা করে চলেছে। ঠান্ডা বাড়লে তখন বুলেট নয় হিমবাহের খণ্ডগুলিই সীমান্ত প্রহরীদের কাছে ভয়ঙ্কর শত্রু হয়ে ওঠে। তথ্য বলছে, লাদাখ (Ladakh) সফরে আসা পর্যটকরা প্রায়শই কার্গিল সেক্টর দেখার জন্য আব্দার করে থাকেন। একই সঙ্গে টাইার হিলের যেখানে থেকে পাকিস্তানিদের সঙ্গে ভারতীয় সেনা লড়াই করেছিল তা দেখতেও দেশের পর্যটকদের কম আগ্রহ নেই। এবার সেই আগ্রহকে আরও বাড়িয়ে দিল প্রতিরক্ষামন্ত্রীর বক্তব্য। তিনি যে সিয়াচেন গ্লেসিয়ার (Siachen Glacier) দেখার জন্য পাহাড় প্রেমীদের আমন্ত্রণ জানালেন, পা যে আর ঘরে টিকবেই না।