TMC at Election Commission: 'বুথে অবাধে যাতায়াত চলছে বহিরাগতদের', অভিযোগে নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ তৃণমূল
নির্বাচন কমিশনের দ্বারস্থ তৃণমূল (Picture Credits: ANI)

কলকাতা, ২৭ মার্চ: রাজ্যে চলছে প্রথম দফার বিধানসভা নির্বাচন (West Bengal Assembly Elections 2021)। সকাল থেকে একাধিক কেন্দ্রে ধরা পড়েছে বিক্ষোভের চিত্র। শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টা নাগাদ রাজ্য নির্বাচন কমিশনের (Election Commission) দপ্তরে যান তৃণমূল সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়, ডেরেক ও’ ব্রায়েনরা, কাকলি ঘোষ দস্তিদার, অর্পিতা ঘোষেরা। তাঁদের দাবি, ‘ভোটারদের প্রভাবিত করছে সিআরপিএফ। চার জেলার ১৫টি বিধানসভা কেন্দ্রে প্রভাব তৈরির চেষ্টা চালানো হচ্ছে। পাশাপাশি পোলিং এজেন্ট নিয়ে কমিশনের নয়া নিয়ম, তা বদল করতে হবে বলে দাবি করেন।

সুদীপ বন্দোপাধ্যায়ের অভিযোগ, 'বুথ এজেন্ট নিয়োগের পদ্ধতি পরিবর্তন করার জন্য বিজেপি একটি স্মারকলিপি জমা দিয়েছে। যেখানে বুথের ভোটার হতে হবে এবং যে কোনও বুথে যে কাউকে অনুমতি দিতে হবে বলে দাবি জানায়।' কমিশনে তৃণমূল জানায়, বুথে বসতে দেওয়া হচ্ছে না এজেন্টদের। অবাধে যাতায়াত চলছে বহিরাগতদের। আরও পড়ুন, নির্বাচন কমিশনের ভোটের হারের তথ্যে ত্রুটি? প্রশ্ন তুলে কমিশনকে চিঠি ডেরেক ও'ব্রায়েনের

এদিকে আজ সকালেই ভোটের হার নিয়ে প্রশ্ন তুলে নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দেন তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও'ব্রায়েনের (Derek O'Brien)। তাঁর দাবি, সকাল ৯টা ১৩ মিনিটে কাঁথি দক্ষিণ (২১৬) ও কাঁথি উত্তর (২১৩)-এ ভোটদান যথাক্রমে ১৮.৪৭% এবং ১৮.৯৫% ছিল। তার ঠিক চার মিনিট পরে সকাল ৯ টা ১৭ মিনিটে ভোটের হার হ্রাস পেয়ে হয় ১০.৬০% এবং ৯.৪০%। কীভাবে ভোটের হারে এত বড় ফারাক হল? ভোট অর্ধেক হয়ে গেল? তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন সাংসদ। নির্বাচন কমিশনের জারি করা তথ্যের সত্যতা নিয়ে প্রশ্নতোলেন তিনি।