Mahua Moitra Moves SC Against Citizenship Amendment Act:  নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বৈধতাকে চ্যালেঞ্জ, সুপ্রিম কোর্টে তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র
তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র (Photo Credit:Twitter)

নতুন দিল্লি, ১৩ ডিসেম্বর: নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের (Citizenship Amendment Act) বৈধতাকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে সুপ্রিম কোর্টে (Supreme Court) গেলেন তৃণমূল কংগ্রেসের (TMC) সাংসদ মহুয়া মৈত্র (Mahua Moitra )। প্রধান বিচারপতি এসএ বোবদের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চে তিনি প্রথমেই জরুরি শুনানির আবেদন করেন। যদিও সেই আবেদন মানেনি বেঞ্চ। তৃণমূল সাংসদের আইনজীবীকে শীর্ষ আদালতের উল্লেখকারী অফিসারের কাছে উল্লেখ করতে বলেছেন।

বৃহস্পতিবারই এই বিলের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে গেছে ইন্ডিয়ান ইউনিয়ন অফ মুসলিম লিগ (Indian Union Muslim League)। আবেদনকারীদের মধ্যে রয়েছেন দলের চার সাংসদ পি কি কুনহালিকুট্টি, ই টি মহম্মদ বশির, আবদুল ওয়াহাব, কে নভস কানি-সহ একাধিক নেতা। তাঁদের অভিযোগ, বিলে পাকিস্তান-বাংলাদেশ-আফগানিস্তানে ধর্মীয় নিপীড়নের শিকার মুসলিমদের সঙ্গে বৈষম্য করা হয়েছে। কংগ্রেস-সহ আরও বেশ কিছু বিরোধী দল এর পর সুপ্রিম কোর্টে মামলা করতে পারে বলে ইঙ্গিত মিলছে। আইন মন্ত্রক সূত্রে খবর, শীর্ষ আদালতে কেন্দ্রের অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপাল, সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা কোন যুক্তিতে সওয়াল করবেন, তার প্রস্তুতিও চলছে। আবেদনে মুসলিম লিগের অভিযোগ, বিল সংবিধানের মূল ভাবনার বিরুদ্ধে। সংবিধান বলে, সবাইকে সমান চোখে দেখতে হবে। কিন্তু এই বিলে ছ’টি ধর্মীয় গোষ্ঠীকে নাগরিকত্ব দেওয়ার কথা বললেও মুসলিমদের বাদ দেওয়া হয়েছে। তাই এই বিল সংবিধানের ১৪-তম অনুচ্ছেদের পরিপন্থী। কিন্তু আইন মন্ত্রকের যুক্তি, এ ক্ষেত্রে সকলে সমান নয়। তিন প্রতিবেশী রাষ্ট্রে মুসলিমরা ধর্মীয় নিপীড়নের শিকার নন। তাই ১৪-তম অনুচ্ছেদ লঙ্ঘনের প্রশ্ন উঠছে না। আরও পড়ুন: President Ram Nath Kovind: মধ্যরাতে রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের সইয়ের মাধ্যমে আইনে কার্যকর নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল

সরকারি আইনজীবীদের যুক্তি, সংবিধানের ১৫-তম অনুচ্ছেদ লঙ্ঘনের প্রশ্নও উঠছে না। কারণ, এই অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, ধর্ম, জাত, লিঙ্গ, জন্মস্থানের ভিত্তিতে রাষ্ট্র নাগরিকদের মধ্যে ভেদাভেদ করতে পারে না। আইন মন্ত্রকের বক্তব্য, এই বিলটি যাঁরা ভবিষ্যতে নাগরিক হবেন, তাদের জন্য। তাই ১৫-তম অনুচ্ছেদ খাটে না।

এদিকে বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলে (CAB) সই করে দিলেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ (President Ram Nath Kovind)। রাষ্ট্রপতির সইয়ের সঙ্গে সঙ্গেই আইনে কার্যকর করে দেওয়া হচ্ছে। নতুন আইনে প্রতিবেশী তিন দেশ থেকে আসা অমুসলিম শরণার্থীদের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে। সংশোধিত এই আইনে প্রতিবেশী বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও আফগানিস্তান থেকে ধর্মীয় নিপীড়ের শিকার হয়ে আসা হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন, পার্সি ও খ্রিস্টানরা ভারতে এসে থাকলে তাঁরা এ দেশের নাগরিকত্ব পাবেন। প্রবল বিরোধিতার মধ্যে থেকে সোমবার লোকসভায় মধ্যরাতে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাস হয়। পরে বুধবার তা পাস হয়ে যায় রাজ্যসভাতেও। ফেলে না রেখে তাতে সই করে দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি। সংসদে এই বিলের বিরুদ্ধে বিরোধীরা সরব হলেও তাঁদের সব আশঙ্কার জবাব দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah)।