Karnataka Government Crisis: কংগ্রেসের ২২ জন মন্ত্রীর পদত্যাগে পরিস্থিতি আরও জটিল, ঘোড়া কেনাবেচার অভিযোগ অস্বীকার বিজেপি-র
Union Defence Minister Rajnath Singh and senior Congress leader Siddaramaiah. (Photo Credit: PTI/ANI)

বেঙ্গালুরু, ৮ জুলাই: কর্নাটকের রাজনৈতিক পরিস্থিতি আরও জটিল হল। গত বছর বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপিকে হারিয়ে কোনও রকমে সমাঝোতা হয়ে সরকার গড়ে জেডিইউ-কংগ্রেস। কিন্তু লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি-র বিপুল জয়ের পর কর্নাটকে কুমারস্বামীর সরকার ভাঙার মুখে। গতকাল কংগ্রেসের ১৩ জন বিধায়ক ইস্তফা দেওয়ার পর, এবার কংগ্রেসের ২২ জন মন্ত্রী পদত্যাগ করলেন।

রাজ্যে বিধায়কদের নিয়ে জোর ঘোড়া কেনাবেচা বা হর্স ট্রেডিং চলছে বলে অভিযোগ উঠেছে। যা নিয়ে বিজেপি পুরোপুরি দায় এড়িয়েছে। গতকাল, সন্ধ্যায় সাংবাদিক বৈঠকে বিক্ষুব্ধ বিধায়ক এস টি সোমশেখর জানান, যে ১৩ জন বিধায়ক পদত্যাগ করেছেন, তাঁদের পদত্যাগ প্রত্যাহারের প্রশ্নই নেই। আরও পড়ুন-যৌনতায় রাজি না হওয়া হত্যা স্ত্রী-কে খুনের পর নিজের যৌনাঙ্গ কেটে রাগ মেটাল স্বামী

কর্নাটকের রাজনৈতিক পরিস্থিতি নিয়ে তাদের জড়িত থাকার কথা একেবারে অস্বীকার করে বিজেপি-র বর্ষীয়ান নেতা-মন্ত্রী রাজনাথ সিং বলেছেন, ''বিজেপি কখনই হর্স ট্রেডিংয়ের রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না। তাই কর্নাটকের রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে নেই আমাদের কোনও হাত নেই।''

গত বছর মে মাসে কর্নাটকে বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল ত্রিশঙ্কু ছিল। ১০৪টি আসনে জিতে বিজেপি অবশ্য একক সংখ্যাগরিষ্ঠ দল ছিল। কংগ্রেস সেখানে জিতেছিল ৮০টি ও জেডিইউ পেয়েছিল ৩৮টি আসন। শেষ অবধি জেডিইউ-কে মুখ্যমন্ত্রী-র পদ দিয়ে বিজেপি-কে ক্ষমতা থেকে সরাতে দেবগৌড়ার দলের সঙ্গে জোট গড়ে কংগ্রেস। কিন্তু জেডিইউ-কংগ্রেসের জোট কখনই মসৃণবাবে কাজ করতে পারছে না। লোকসভায় বিজেপি-র জয়ের পর তো দল ছাড়ার হিড়িক পড়ায় রাজ্য সরকার ভাঙার পথে।