Ukrainian Plane Crash: ইউক্রেনের যাত্রীবাহী বিমান ভেঙে পড়া নিয়ে জল্পনা, ইরানের দেখানো কারণ নিয়ে 'সন্দেহ'  প্রকাশ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের
ইউক্রেনের যাত্রীবাহী বিমান ভেঙে পড়ে (Photo Credits: AFP)

ওয়াশিংটন, ১০ জানুয়ারি: তেহরানের কাছে ১৭৬ জন যাত্রীবাহী ইউক্রেনের বিমান (Ukrainian Flight) ভেঙে পড়ার একদিন পর আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের পেন্টাগনের কর্মকর্তাদের একটি রিপোর্টে বলা হয়েছে যে ইরান অ্যান্টি-মিসাইল সিস্টেমটি "দুর্ঘটনাবশতঃ" গুলি করে নামিয়ে আনে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প (Donald Trump) সাংবাদিক বৈঠকে জানান যে এই প্রতিবেদনের উল্লেখ করে জানিয়েছেন, ইউক্রেনের বিমানটি কোনও প্রযুক্তিগত ত্রুটির কারণে ভেঙে যাওয়া নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন। কানাডার দাবি, ইরান যে মিসাইল ছুড়ে ওই বিমান ধ্বংস করেছে, তার প্রমাণ রয়েছে তাদের গোয়েন্দাদের কাছে।

নিউজউইকের প্রতিবেদন অনুযায়ী পেন্টাগনের কর্মকর্তাদের মতে, তারা রাশিয়ার নির্মিত টর-এম ১ পৃষ্ঠ-থেকে-বায়ু ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করে ইউক্রেনীয় বিমানটিকে গুলি করে

গুলি করে নামিয়ে আনার বিষয়ে ইনপুট সংগ্রহ করেছে। আরও পড়ুন, রাত পেরোতেই বাগদাদের গ্রিন জোনে ফের জোড়া রকেট ছুড়ল ইরান

বৃহস্পতিবার বিমান দুর্ঘটনার পরে ইরান জানিয়েছে যে এটি একটি "মর্মান্তিক দুর্ঘটনা" ছিল। শীঘ্রই তারা একটি বিবৃতি জারি করে দাবি করে সমস্ত যাত্রী এবং ক্রু সদস্য নিহত হয়েছেন, নিহতদের মধ্যে অন্তত ৮৩ জন ইরান এবং বাকি ৬১ জন কানাডার যাত্রী ছিলেন।

কিন্তু ইরানের "দুর্ঘটনা" দাবি নিয়ে ইউক্রেনের আন্তর্জাতিক বিমান সংস্থার ওই বিমানের ব্ল্যাক বক্স হস্তান্তর করতে অস্বীকার করায় এই দাবি থেকে সন্দেহের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। কিয়েভের কর্মকর্তাদের মতে, বোয়িং ৭৩৭ বিমানটি কয়েক দিন আগে তার পরীক্ষা নিরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছিল। তখন প্রযুক্তিগত ত্রুটি আগে দেখা যায়নি।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প সাংবাদিক বৈঠকে সব জল্পনা-কল্পনা উস্কে দিয়ে দাবি করেছেন যে ইরান বাহিনী কর্তৃক দুর্ঘটনাক্রমে বিমানটি ছিটকে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। "কিছু লোক বলে যে এটি যান্ত্রিক ত্রুটি ছিল, আমি ব্যক্তিগতভাবে এটিকে একটি দুর্ঘটনা মনে করি না। আমার এমন অনুভূতি হচ্ছে যে ... খুব ভয়াবহ কিছু ঘটেছিল,"। ট্রাম্প আরও বলেছিলেন যে তিনি আশাবাদী যে ইরান সরকার "কিছু সময়" পর ধ্বংস হওয়া বিমানের ব্ল্যাক বক্স প্রকাশ করবে।