Pravasi Durga Puja 2023: নিউইয়র্কের সেরা দুর্গাপূজাগুলো সম্পর্কে জেনে নিন
Durga Puja (Photo Credit: pixabay)

কলকাতা: দুর্গাপূজা হল শরৎকালের সবচেয়ে বড় হিন্দু উৎসব। আর দুর্গাপূজা বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তে উদযাপন হয়। নিউইয়র্কের (New York) দুর্গাপূজায় কলকাতার দুর্গাপূজার (Durga Puja) মতোই আকর্ষণ রয়েছে। মহালয়া থেকে শুরু হয়ে দশমীতে শেষ হয় এই উৎসব। অঞ্জলি থেকে কুমারী পূজা সমস্ত আচার-অনুষ্ঠান এবং রীতিনীতি খাঁটি বাঙালি পদ্ধতিতে সম্পন্ন হয়। চলুন নিউ ইয়র্কের সেরা দুর্গাপূজাগুলো সম্পর্কে জেনে নেওয়া যাক।আরও পড়ুন : Durga Puja 2023: প্রবাসের পুজো, ব্রিটেনের সেরা পুজোগুলি দেখে নিন এক ঝলকে

ইস্ট কোস্ট দুর্গা পূজা সমিতি কুইন্স

এটি কুইন্সের বরোতে অবস্থিত একটি সংস্থা। ১৯৭০ সালে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়। এটির লক্ষ্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বাঙালি এবং ভারতীয় ঐতিহ্যের প্রচার করা। প্রথম দিকে এই কমিটিতে ১০০-২০০ জন বাঙালি বাসিন্দা জড়িত ছিল। বর্তমানে ভারতীয় ও বাংলাদেশি বাঙালিসহ  সংখ্যাটা কয়েক হাজার ছাড়িয়েছে।

বাফেলোর সংস্কৃতি দুর্গাপূজা

সংস্কৃতি সংগঠনের সূচনা হয়েছিল ১৯৭৪-৭৫ সালে। এই ক্লাবটি বাঙালি সম্প্রদায়কে আরও শক্তিশালী করেছে এবং বাঙালি অনুষ্ঠানের ছোট ছোট আয়োজন করে চলেছে। সংস্কৃতি বাফেলো প্রতি বছর অনেক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে যেমন, সরস্বতী পূজা, শীতকালীন পিকনিক, বসন্ত উৎসব, গ্রীষ্মকালীন পিকনিক, দুর্গা পূজা, বিজয়া সম্মেলন, লক্ষ্মী পূজা এবং বার্ষিক নৈশভোজ।

বাংলাদেশ হিন্দু মন্দির ফ্লাশিং

মন্দিরটি এলমহার্স্ট কুইন্সে বাংলাদেশী হিন্দুদের দ্বারা প্রতিষ্ঠিত ও পরিচালিত। ৯০০০ বর্গফুটের বিশাল মন্দির।এখানে আধুনিক সাউন্ড সিস্টেম দিয়ে সাজানো ফলে এই মন্দিরের ভিতরে মন্ত্রপাঠ হলে তা প্রতিধ্বনিত হয়।

বাংলাদেশ পূজা সমিতি সানিসাইড

বাংলাদেশ পূজা সমিতি নিউইয়র্কের সানিসাইডে অবস্থিত একটি প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশী অভিবাসীদের একটি দল ১৯৮৯ সালে এই হিন্দু ধর্মীয় সমিতি গঠন করে। তাদের দুর্গা পূজা উদযাপনের মধ্যে রয়েছে সুস্বাদু খাবার এবং মুম্বাইয়ের দুর্গা পূজার মতো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

নিউ ইয়র্কের বেদান্ত সোসাইটি - বেলুড় মঠ

বেদান্ত সোসাইটির উদযাপনগুলি নিউইয়র্কের অন্য হিন্দু সংগঠনের থেকে আলাদা। এটি স্বামী বিবেকানন্দ দ্বারা প্রতিষ্ঠিত প্রথম বেদান্ত সোসাইটি। বর্তমানে, এটি ভারতের রামকৃষ্ণ মঠের সঙ্গে অধিভুক্ত।এখানে দুর্গাপূজা রামকৃষ্ণ মিশনের রীতি অনুসারে উদযাপিত হয়।

জ্যামাইকা কালী মন্দির

জ্যামাইকা কালী মন্দির ২০১০ সালে নিউইয়র্কে বাঙালি হিন্দুরা নতুন একটি সংস্থা প্রতিষ্ঠা করে। মন্দিরটি ভক্তদের জন্য প্রতিদিন খোলা থাকে। লন্ডনের দুর্গাপূজার মতো, তারা প্রায় সব জনপ্রিয় হিন্দু উৎসবের আয়োজন করে।

ওম শক্তি মন্দির উডসাইড 

ওম শক্তি মন্দির সবকিছু এক জায়গায়। এখানে প্রায় সব হিন্দু দেবদেবীর দেবতা প্রতিষ্ঠিত। এখানে প্রার্থনার পাশাপাশি হিন্দু ধর্ম সম্পর্কে দার্শনিক আলোচনা এবং ধর্মীয় বিষয়ে পাঠের আয়োজন করা হয়। সমস্ত ধর্মের লোকেরা মন্দিরে স্বেচ্ছাসেবক বা হিন্দু ধর্ম সম্পর্কে শিখতে পারে। মন্দিরটি রবিবার থেকে শুক্রবার খোলা থাকে।

শ্রী মহা কালী দেবী মন্দির

এই মন্দিরটি ১৯৯৮ সালে নিউইয়র্কের ব্রুকলিনে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এই মন্দিরের প্রধান দেবতা হলেন দেবী কালী। এখানে কাল ভৈরব, সূর্যনারায়ণ, ভূমিদেবী, দুর্গা, গঙ্গা, হনুমান, কৃষ্ণ, লক্ষ্মী, রাম, সরস্বতী, শিব, সীতা, সাপের উপাসনা, গণপতি প্রভৃতি দেবতাদের পূজা করা হয়। মন্দিরটি দর্শনার্থীদের জন্য সারাদিন খোলা থাকে।

দিব্য ধাম মন্দির দুর্গাপূজা 

দিব্যা ধাম মন্দির হল নিউইয়র্ক, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বৃহত্তম মন্দির। স্বামী জগদীশ্বর নন্দ জি মহারাজ ১৯৯৩ সালে এই মন্দিরের ভিত্তি স্থাপন করেছিলেন।