কে এই বিদিশা মৈত্র? যার স্পষ্ট, যুক্তিযুক্ত ও চাঁচাছোলা জবাবে কুপোকাত ইমরান খান
বিদিশা মৈত্র (Photo Credits: Twitter)

নতুন দিল্লি, ২৮ সেপ্টেম্বর: রাষ্ট্রসংঘের (UN) সাধারণ সভায় পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের (Imran Khan) বক্তব্যের উপযুক্ত জবাব দিয়েছে ভারত। পাক প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের পরিপ্রেক্ষিতে ভারতের বিদেশমন্ত্রকের ফার্স্ট সেক্রেটারি (First Secretary at India's Ministry of External Affairs) বিদিশা মৈত্র (Vidisha Maitra) বলেন, যে দেশ সন্ত্রাসবাদকে সুগঠিত ইন্ডাস্ট্রিতে পরিণত করেছে, সেই পাকিস্তানের প্রধানের মুখে সন্ত্রাসবাদের ব্যাখ্যা বেমানান। ইমরান খানের বক্তব্যের প্রেক্ষিতে ভারতের জবাব দেওয়ার অধিকার ব্যবহার করে বিদিশা কড়া ভাষায় ইসলামাবাদের সমালোচনা করেন। গতকাল ইমরান খানের ঘৃণাবার ভাষণের জবাব দিতে আজ ভারত মাঠে নামায় বিদিশা মৈত্রকে। কিন্তু কে এই বিদিশা মৈত্র।

বিদিশা মৈত্র ২০০৮ ব্যাচের একজন IFS (Indian Foreign Service) অফিসার। তিনি রাষ্ট্রসংঘের নতুন ভারতীয় কূটনীতিকদের মধ্যে অন্যতম। মৈত্র সংখ্যালঘুদের প্রতি আচরণ নিয়ে পাকিস্তানের ভন্ডামি সামনে আনার জন্য ভারতের "রাইট টু রিপ্লাই" ব্যবহার করেন। তিনি পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের প্রতিটি দাবি স্পষ্টতই যুক্তি দিয়ে খারিজ করেন। জানা যাচ্ছে, কাজের দিক থেকে প্রথম থেকেই নজর কাড়েন বিদিশা। ২০০৯ সালে সেরা অফিসার প্রশিক্ষকের জন্য বিদেশমন্ত্রকের পদক পান। সোশাল মিডিয়ায় নেটিজেনরাও বিদিশাকে নিয়ে চর্চা শুরু করেছে। অনেকে বলেছেন, মহিলাদের ক্ষমতায়নের এটাই ফল। আরও পড়ুন: 'পাকিস্তান জঙ্গিদের পেনশন দেয়', রাষ্ট্রপুঞ্জে ইমরানের বার্তায় পাল্টা আক্রমণ বিদেশমন্ত্রকের ফার্স্ট সেক্রেটারি বিদিশা মৈত্রের

বিদেশমন্ত্রকের ফার্স্ট সেক্রেটারি বিদিশা মৈত্র আজ বলেন, 'পাকিস্তানই একমাত্র দেশ, যারা রাষ্ট্রপুঞ্জের তালিকাভূক্ত এক জঙ্গিকে পেনশন দেয়৷ ৯/১১ হামলার মাথা ওসামা বিন লাদেনকেও সমর্থন করেছিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী৷ অস্বীকার করতে পারেন?" তিনি আরও বলেন, "কেউ একজন, যিনি একসময় ক্রিকেট খেলতেন, জেন্টলম্যানস গেমে বিশ্বাস রাখেন, শুক্রবার তাঁর ভাষণে হিংসা ও বন্দুকের খেলা উঠে এল৷ ১৯৭১ সালের সেই গণহত্যা বিশ্ববাসী ভোলেনি৷ নিজেদের দেশের মানুষকেই হত্যা করেছিল পাকিস্তান৷ তাই দয়া করে, নিজেদের ইতিহাসটাকে একটু ঝালিয়ে নিন৷"

ইমরান খান শুক্রবার রাষ্ট্রপুঞ্জে কাশ্মীর ইস্যুতে ১৫ মিনিটের জন্য ভাষণ দেন। কিন্তু ৫০ মিনিট ধরে তিনি কথা বলেন। এর মধ্যে তাঁর বক্তব্যের মূল বিষয় ছিল কাশ্মীর ইস্যু। তিনি বলেন, "কাশ্মীরে অমানবিক কার্ফু অবিলম্বে তুলে নিতে হবে ভারতকে৷ সব রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তি দিক৷" কাশ্মীর ইস্যুকে সামনে রেখে ভারতকে কোণঠাসা করেন ইমরান খান।

জবাবে বিদিশা মৈত্রের নিশানায় ছিল মুম্বই হামলার মূলচক্রী জঙ্গিনেতা হাফিজ় সইদ৷ পাকিস্তানে হাফিজ সইদ যে পেনশন পান, তা দিন দুয়েক আগেই পাকিস্তান। জবাবে বিদিশার প্রশ্ন, "পাকিস্তান কি অস্বীকার করতে পারে যে তারা রাষ্ট্রপুঞ্জের দ্বারা চিহ্নিত ১৩০টি সন্ত্রাসবাদী সংগঠনকে আজও আশ্রয় দিয়ে রেখেছে? পাকিস্তান কি অস্বীকার করতে পারে যে তারাই বিশ্বের একমাত্র রাষ্ট্র যারা রাষ্ট্রসংঘের ঘোষিত সন্ত্রাসবাদীকে পেনশন দেয়? সন্ত্রাসে টাকা জোগানোর কারণে পাকিস্তানের প্রধান ব্যংক হাবিব ব্যাংকের কয়েক মিলিয়ন ডলার জরিমানা হয়েছিল। সেই কারণেই ব্যাংকটি বন্ধ হয়ে যায়। এই ঘটনার ব্যাখ্যা কি পাক সরকারের কাছে আছে?'