Anti-CAA Protests in Uttar Pradesh:  CAA বিরোধী বিক্ষোভে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১১, তাদের গুলিতে মৃত্যু হয়নি; দাবি উত্তরপ্রদেশ পুলিশের
উত্তরপ্রদেশে বিক্ষোভ (Photo Credits: IANS)

লখনউ, ২১ ডিসেম্বর: উত্তরপ্রদেশে (Uttar Pradesh) গতকাল সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতার বিক্ষোভে (Protest) মৃতের (Dead) সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ১১ জন, PTI-র খবর অনুযায়ী। উত্তরপ্রদেশ পুলিশ ৬ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেছে। উত্তরপ্রদেশ পুলিশের ডিজিপি (DGP) ও পি সিং দাবি করেছেন, বিক্ষোভ মিছিলে পুলিশের তরফ থেকে কোনোভাবেই গুলি চালানো হয়নি। বিক্ষোভকারীদের পুলিশের গুলিতে মৃত্যু হয়নি।

গতকাল উত্তরপ্রদেশে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন (CAA) নিয়ে উত্তাল ছিল রাজ্য। রাজ্যে দিকে দিকে বিক্ষোভ হয়। শুক্রবার উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ (Yogi Adityanath) বিক্ষোভকারীদের হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছিলেন, দেশবিরোধীদের ওপর প্রতিশোধ নেওয়া হবে। মুজফফরপুর, বাহরাইচ, বুলন্দশহর, গোরক্ষপুর, ফিরোজাবাদ, আলিগড় এবং ফারুখাবাদ জেলায় সবচেয়ে বেশি বিক্ষোভ হয়। ওইসব অঞ্চলে পথে নামে হাজার হাজার মানুষ। পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে পাথর ছোড়া হয়। গাড়িতে আগুন লাগানো হয়। পুলিশ বিক্ষুব্ধ জনতাকে লাঠিচার্জ করে ও কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে। জনতাকেও পুলিশের দিকে দেদার ইটবৃষ্টি করতে দেখা যায়। আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয় একটি পুলিশ জিপে। আরও পড়ুন, পশ্চিমবঙ্গের পর কেরালাতেও এনপিআরে স্থগিতাদেশ

দু’মিনিটের এক ভিডিওতে দেখা যায়, রাজ্যের পূর্ব প্রান্তে গোরক্ষপুরে এক সরু গলির এক প্রান্তে দাঁড়িয়ে জনতা। দাঙ্গাহাঙ্গামা ঠেকানোর জন্য তারা প্রস্তুতি নিয়ে এসেছে পুলিশ। পুলিশের কয়েকজনের হাতে ছিল অ্যাসল্ট রাইফেল। গতকাল বেলা তিনটে থেকে বন্ধ করে দেওয়া হয় ইন্টারনেট পরিষেবা (Internet)। লখনউতে বৃহস্পতিবার বিক্ষোভে একজনের মৃত্যু হয়েছে। শুক্রবার নমাজের আগে শহরে কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছিল। আজও শহরের বাজারগুলি শুনশান। ইন্টারনেট পরিষেবাও বন্ধ রাখা হয়েছে।