Russia-Ukraine War: ইউক্রেন যাতে রাশিয়াকে চোখ রাঙাতে না পারে সেই ব্যবস্থা করব, হুঙ্কার পুতিনের
Vladimir Putin (Photo Credit: Instagram)

কিভ, ১৬ মার্চ: ইউক্রেনে রাশিয়ার (Russia) হানাদারি আজ ২১ দিনে পড়ল। গত ২৪ ফেব্রুয়ারি ইউক্রেনে 'বিশেষ সেনা অভিযান' চালায় রাশিয়া। ইউক্রেনে রুশে সেনার হামলার পর এই প্রথম রাশিয়া এবং ইউক্রেনের প্রতিনিধিরা উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকে বসলেন। সংবাদ সংস্থার তরফে এমনই তথ্য মিলছে। রাশিয়া-ইউক্রেনের এই উচ্চ পর্যায়ের বৈঠকের পর কি দুই দেশের সমস্যার সমাধান হবে, সেদিকেই তাকিয়ে প্রায় গোটা বিশ্ব।

এদিকে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে (Vladimir Putin)  'যুদ্ধ অপরাধী' বলে ঘোষণা করা হয়েছে মার্কিন সেনেটের তরফে। পুতিনকে যুদ্ধ অপরাধী হিসেবে ঘোষণার পর আজ ইউক্রেনে হাজির হন আন্তর্জাতিক আদালতের প্রধান আইনজীবী করিম খান। ইউক্রেনে গিয়ে যেমন সর্বাঙ্গীন পরিস্থিতি খতিয়ে দেখেন করিম খান, তেমনি প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির সঙ্গেও বৈঠক করেন করিম খান।

রুশ প্রেসিডেন্টকে যখন যুদ্ধ অপরাধী বলে ঘোষণা করে মার্কিন সেনেট, সেই সময় পুতিনের পালটা দাবিতে শোরগোল শুরু হয়েছে। রুশ প্রেসিডেন্ট দাবি করেন, রাশিয়া ইউক্রেনে যে বিশেষ সেনা অভিযান চালায়, তা সফল। শুধু তাই নয়, রাশিয়াকে একঘরে করার যে প্রক্রিয়া শুরু করে পশ্চিমী বিশ্ব, সেখানে তারা সফল হয়নি। ইউক্রেন যাতে কোনওভাবে রাশিয়াকে কখনও চোখ রাঙিয়ে ভয় দেখাতে না পারে, তারজন্য সমস্ত ধরনের ব্যবস্থা করা হবে বলে হুঙ্কার পুতিনের।

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার কমিশন থেকে রাশিয়াকে বরখাস্ত করল ইউরোপীয় ইউনিয়ন। ইউক্রেনে বিশেষ সেনা অভিযানের জেরেই রাশিয়ার বিরুদ্ধে ওই কড়া পদক্ষেপ করা হয় বলে জানানো হয় ইউরোপীয় ইউনিয়নের তরফে। এরপরই ইক্রেনের প্রেসিডেন্ট বলেন, ইউরোপের মান মর্যাদা রক্ষা করার চেষ্টা চালাচ্ছেন ইউক্রেনের মানুষ। সেই কারণেই রুশ সেনার বিরুদ্ধে তাঁরা হাতে অস্ত্র তুলে নিয়েছেন। ইউরোপের মানুষের যাতে মাথা নত না হয়, তারজন্য ইউক্রেনীয়রা (Ukraine) সদা সচেষ্ট বলেও মন্তব্য করতে শোনা যায় ভলোদিমির জেলেনস্কিকে। গোটা ইউরোপের মান মর্যাদা রক্ষা করার চেষ্টা করচেন ইউক্রেনীয়রা, সেই কারণে আমেরিকা তাঁদের পালটা সাহায্য করছে। গোটা বিশ্বের শান্তি, সুস্থিতি বজায় রাখার ক্ষেত্রে যা প্রয়োজনীয় বলে মন্তব্য করেন জেলেনস্কি (Volodymyr Zelenskyy)।