করতারপুর সাহিব গুরুদ্বার দর্শনে ভারতীয় পুণ্যার্থীদের গুনতে হবে  ২০ মার্কিন ডলার, জানিয়ে দিল পাকিস্তান
মহম্মদ ফয়জল(Photo Credit: ANI)

ইসলামাবাদ, ১২ সেপ্টেম্বর: করতারপুর সাহিব গুরুদ্বার দর্শনে মাথা পিছু ২০ মার্কিন ডলার(USD 20) পরিষেবা কর দিতে হবে। প্রত্যেকে পুণ্যার্থীকেই এই কর মিটিয়ে তবে গুরুদ্বারে প্রবেশ করতে হবে। মনে রাখতে হবে এই ২০ মার্কিন ডলার কিন্তু কর্তারপুর করিডরের কোনও প্রবেশ মূল্য নয়, পরিষেবা কর। এদিন পাকিস্তানের বিদেশ দপ্তরের মুখপাত্র মহম্মদ ফয়জল এক সাপ্তাহিক বিবৃতিতে এই পরিষেবা মূল্যের কথা উল্লেখ করেছেন। এদিকে ভারত পাকিস্তান করতারপুর সাহিব গুরুদ্বারে প্রবেশের জন্য পুণ্যার্থীদের থেকে কোনও টাকা নেওয়া হবে কি না তানিয়ে আলোচনায় বসলেও কোনও সমাধান সূত্র বেরিয়ে আসেনি। প্রায় মাঝপথেই সমঝোতার বিষয়টি ভেস্তে যায়। অন্যদিকে করতারপুর গুরুদ্বারে প্রবেশের জন্য পুণ্যার্থীদের উপরে পরিষেবা মূল্য (service charge) চাপাতে বদ্ধপরিকর পাকিস্তান।

সেই পরিষেবা মূল্য ইসলামাবাদ বসিয়েই ছাড়ল। এদিকে পুণ্যার্থীদের থেকে পরিষেবা মূল্য আদায়ের প্রস্তাবে ভারত সায় দেয়নি। এনিয়েই সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের অভ্যন্তরীণ সুরক্ষার যুগ্ম সচিব বিসিএল দাস। তিনি জানান, করতারপুর সাহিব গুরুদ্বারে আসা ভারতীয় পুণ্যার্থীদের উপরে পরিষেবা মূল্য চাপানো যাবে কি না তানিয়ে আটারিতে- দুই দেশের প্রতিনিধিদের মধ্যে তিনবার বৈঠক হলেও তার ইতিবাচক সমাধান হয়নি। বেশ কয়েকটি ক্ষেত্রে দুই দেশ সহমতে আসতে পারেনি। আসলে পাকিস্তান পুণ্যার্থীদের থেকে টাকা নেওয়ার বিষয়টিতে জোর দিলেও ভারতের মতে এই যে একটা বাধা ভেঙে করতারপুর সাহিব গুরুদ্বারে যাওয়ার যে আগ্রহ ধর্মপ্রাণ শিখদের মধ্যে তৈরি হয়েছে, তা এই টাকা নেওয়ার কারণে ভেস্তে যেতে পারে। আরও পড়ুন-কাশ্মীর সমস্যার মেটাতে ভারত পাকিস্তানের আলোচনা সম্ভব নয়, তৃতীয় পক্ষ জরুরি : শাহ মেহমুদ কুরেশি

এই প্রসঙ্গে বিসিএল দাস (B C L Das) বলেন, “ ভারত চেয়েছিল এদেশ থেকে যাঁরা পাকিস্তানের (Pakistan) করতারপুর সাহিবের গুরুদ্বারে যেতে চান, তাঁরা যেন বিনামূল্যে সেখানে পৌঁছাতে পারেন। তবে চাইলেই তো আর হয় না। পাকিস্তান এটি চায়নি। এই বিষয়টি যে তাদের পছন্দ নয় তা বোঝাতে নানারকম জটিলতর সৃষ্টি করে। অনেক অনুরোদ উপরোধেও ফল মেলেনি। শেষ বিষয়টি ভেবে দেখারও আহ্বান ভারতের তরফে পাকিস্তানকে জানানো হয়েছিল।” তবে পাকিস্তান যে এই পরিষেবা মূল্য নেওয়ার ব্যাপারে ভারতকে ধর্তব্যের মধ্য়ে আনছে না, তা আজে সেদেশের বিদেশ দপ্তরের মুখাপাত্রের বিবৃতিতেই স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। তবে ওই বৈঠকে একটি কাজের কাজ হয়েছে, সেটি হল কোনওরকম ভিসা ছাড়াই (visa-free travel) করতারপুর সাহিব গুরুদ্বারে (Gurdwara Kartarpur Sahib) যেতে পারবেন ভারতীয় পুণ্যার্থীরা (Indian pilgrims)। তবে একদিনে ৫ হাজারের বেশি পুণ্যার্থীকে গুরুদ্বারে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হবে না।