সময় নেই, গুরু নানকের জন্ম বার্ষিকীর আগে আর করতারপুর করিডর বানাবে না পাকিস্তান
করতারপুর গুরুদ্বার(Photo Credit: Youtube)

ইসলামাবাদ, ৩১ আগস্ট: শিখ গুর গুরু নানকের ৫৫০-তম জন্ম বার্ষিকী আসতে আর দেরি নেই। তাই সময়ের অভাবে গুরু নানকের জন্ম বার্ষিকীর আগে আর জিরো ল্যান্ড থেকে করতারপুর শিখ গুরুদ্বার পর্যন্ত সেতু বানাবে না পাকিস্তান। শনিবার এক বিবৃতিতে এমন তথ্যই প্রকাশ্যে এনেছে ইসলামাবাদ। তারা যে সময় বের করতে অপারগ তা জানিয়ে দিয়েছে। তাই জিরো ল্যান্ড থেকে করতারপুর গুরুদ্বার (Kartarpur Gurdwara)পর্যন্ত ৩০০ মিটার সেতু নির্মাণের কাজ থামিয়ে দিয়েছে পাকিস্তান। গতকাল এনিয়ে দুই দেশের টেকনিক্যাল কমিটির প্রতিনিধিরা একটি বৈঠকে বসেন। সেখানেই পাকিস্তানের তরফে জানানো হয় তীর্থযাত্রীদের সুবিধার্থে একটি সার্ভিস লেন তৈরি করে দেওয়া হবে।

জানা গিয়েছে, গোটা নির্মাণ কাজের জন্য ১৭৭ কোটি টাকা খরচ হতে চলেছে। আাগামী ৩০ অক্টোবরের মধ্যেই এই নির্মাণ কার্য শেষ করতে হবে। সেতু তৈরির জন্য নিযুক্ত হওয়া নির্মাণ সংস্থাকে এমনটাই নির্দেশ দিয়েছে ভারত। স্থানীয় রবি নদীর (Ravi River) উপরে আরও একটি ব্রিজ তৈরি করবে ভারত। এই যে করতারপুর গুরুদ্বারে পৌঁছাতে দুই দেশের মধ্যে যে করিডর তৈরি হচ্ছে তার উদ্বোধনের দিন নিয়েও শুক্রবারের বৈঠকে দুই দেশের প্রতিনিধিদের মধ্যে আলোচনা হয়েছে। এই সেতু নির্মাণ নিয়ে দুই দেশের প্রতিনিধিদের মধ্যে পরবর্তী বৈঠক হতে চলেছে আগামী সেপ্টেম্বরে। রিপোর্ট অনুসারে গলকালের বৈঠক শেষের পর পাকিস্তানের বিদেশ দপ্তর (Foreign office) জানিয়েছে ভাল উন্নয়ন সাধিত হয়েছে টেকনিক্যাল স্তরে কথা বলার সময়তেই। গতকালের করতারপুর করিডর দুই দেশের প্রতিনিধিদের মধ্যে যে আলাপচারিত হয়েছে, তা কাশ্মীর ৩৭০ ধারা (Article 370) উঠে যাওয়ার পর পাকিস্তান ও ভারতের মধ্যে প্রথম সরকারি পর্যায়ের বৈঠক। আরও পড়ুন-গিরিখাতে উল্টে গেল পাকিস্তানের যাত্রীবাহী বাস, মৃত একই পরিবারের ২৪ জন

এই প্রসঙ্গে শনিবার মোদি সরকারের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Home Minister Amit Shah) বলেছেন, নির্ধারিত সময়ে মধ্যে করতারপুর সাহিব করিডরের কাজ শেষ হবে, প্রতিশ্রুতি দিয়েছে ভারত। কাজ যে হচ্ছেই বৈঠকের একদিন পরে তার নিশ্চয়তা দিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এমনিতেই সংশ্লিষ্ট এলাকায় ভারতের শেষ শহর ডেরা বাবা নানক থেকে করতার সাহিব গুরুদ্বারের দূরত্ব ৬ কিলেমিটার। আর এই করতার সাহিব গুরুদ্বার রয়েছে পাকিস্তানে। ভারত এই ডেরা বাবা নানক থেকে গুরদাসপুর (Gurdaspur) সীমান্ত পর্যন্ত সেতু নির্মাণের কাজটি করবে। আর জিরো ল্যান্ড বাদ দিয়ে ভারত সীমান্ত থেকে করতারপুর সাহিব গুরুদ্বার পর্যন্ত সেতুর বাকি অংশ তৈরি করবে পাকিস্তান।