Al Jazeera: প্যালেস্টাইনে আল জাজিরার মহিলা সাংবাদিককে গুলি করে হত্যা, অভিযুক্ত ইজরায়েল
Al Jazeera journalist killed by Israeli forces while covering raid in West Bank. (Photo CreditsL Twitter)

প্যালেস্টাইন ভূখণ্ডে জেনিনে আল জাজিরা (Al Jazeera)-র এক কর্তব্যরত মহিলা সাংবাদিক বুলেটের আঘাতে প্রাণ হারালেন। ওয়েস্ট ব্যাঙ্ককে 'সন্ত্রাসবাদী'দের ধরতে অভিযান চালায় ইজরায়েল সেনারা। তাদের বিরুদ্ধে ইজরায়েলে জঙ্গি কার্যকলাপ চালানোর অভিযোগ ছিল। ওয়েস্ট ব্যাঙ্কে ইজরায়েল সেনার হানার পাল্টা প্রতিরোধ করে প্যালেস্টাইন সেনা। শুরু হয় গোলাগুলি, সংঘর্ষ। দু পক্ষের গোলাগুলির মধ্যে এসে পড়েন আল জাজিরার সাংবাদিক শিরেন আবু আলেখ ও তাঁর সহকর্মী আলি আল সামুদি। গুলির আঘাতে ঘটনাস্থলে মারা যান ৫১ বছর বয়সের মহিলা সাংবাদিক শিরেন আবু আলেখ। গুরুতর জখম অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় আলি আল সামুদি-কে। তিনি সুস্থ হয়ে উঠছেন।

আল জাজিরার অভিযোগ ইজরায়েল বাহিনী ইচ্ছা করেই টার্গেট সাংবাদিক শিরেন আবু আলেখ-কে লক্ষ্য করে গুলি চালিয়ে হত্যা করে। যদিও ইজরায়েল সাফ জানায়, প্যালেস্টাইন জঙ্গিদদের ছোঁড়া গুলিতেই মারা যান ওই সাংবাদিক। প্রসঙ্গত, ইজয়ারেল-প্যালেস্টাইন দ্বন্দ্বে পরিষ্কার ইজরায়েল বিরোধী খবর দেখায়। আলজাজিরা তাদের বিবৃতিতে আরও বলেছে, যে ভাবে শিরিনকে মারা হয়েছে তাতে আন্তর্জাতিক আইন সম্পূর্ণ ভাবে লঙ্ঘিত হয়েছে। তারা এও বলেছে, যে ভাবে সাংবাদিকদের টার্গেট করে মেরে ফেলা হচ্ছে তা ভয়াবহ। আরও পড়ুন: করোনা ছাড়ল না বিল গেটস-কেও

দেখুন টুইট

মানুষের কাছে খবর দিতে গিয়ে প্রাণ যাওয়া সেই মহিলা সাংবাদিকের জন্ম জেরুজালামে, ক্রিস্টান পরিবারে বেড়ে ওঠা। এক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকতা করতেন। কিন্তু সাংবাদিকতা করার ঝোঁকে শিক্ষকতা ছেড়ে যোগ দেন ভয়েস অফ প্যালেস্টাইন রেডিও নামে এক সংস্থায়। তারপর আমম্মান স্যাটেলাইটস দ্য মিফাত ফাউইন্ডেশন এবং মন্টো কার্লো রেডিওতে দশ্রতার সঙ্গে কাজ করার পর যোগ দিয়েছিলেন মধ্যপ্রাচ্যের সবচেয়ে বড় খবরের সংস্থা আলজাজিরায়। শুরুতে ডেস্কে বসে কপি লিখতেন। কিন্তু ঘটনাস্থলে গিয়ে রিপোর্টিংয়ের ঝোঁকে বারবার বেরিয়ে পড়তেন। তাঁর বেশ কিছু রিপোর্টিং দর্শকদের মন জেতে।

দেখুন টুইট

ইজরায়েল সরকার ওই মহিলা সাংবাদিকের হত্যার তদন্ত দাবি করে জানিয়েছে। ইজরায়েল-প্যালেস্টাইন একযোগে সঠিক তদন্ত হলেই বোঝা যাবে আমাদের নয় প্যালেস্টাইন জঙ্গিদের ছোঁড়া গুলিতেই মৃত্যু হয়েছে ওই সাংবাদিকের। এমই দাবি ইজরায়েলের। পাশাপাশি ইজরায়েল সরকার জানায়, যেসব জায়গায় এভাবে যুদ্ধ বা দ্বন্দ্ব চলে সেইসব জায়গায় সাংবাদিকদের উপযুক্ত সুরক্ষা পোশাক দেওয়া ও বিধি জানিয়ে দেওয়া উচিত ছিল সংস্থার।