Santanu Sen: নির্বাচন কমিশনের দফতর বিজেপির পার্টি অফিসে পরিণত হয়েছে, দাবি তৃণমূল সাংসদ শান্তনু সেনের

লোকসভা ভোটের (Lok Sabha Election 2024) দিনক্ষণ সদ্যই প্রকাশিত হয়েছে। আর তারপরেই এই নিয়ে জোর সমালোচনা শুরু করেছে বিরোধীরা। বাংলায় সাত দফা ভোট এবং পুলিশ কমিশনার পদ থেকে রাজীব কুমারকে সড়ানো নিয়ে নির্বাচন কমিশনকে তীব্র আক্রমণ করছে তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব। সম্প্রতি তৃণমূল সাংসদ ডেরেক ও'ব্রায়েন লোকসভা নির্বাচনকে সুপ্রিম কোর্টের নজরদারিতে করার আবেদন জানিয়ে টুইট করেছিলেন।

এবার সেই পথে হাঁটলেন তৃণমূলের অপর আরেক সাংসদ শান্তনু সেন (Shantanu Sen)। মঙ্গলবার তিনি বলেন, "১৯৫২-তে প্রথম লোকসভা নির্বাচন হওয়ার সময় থেকে দেশবাসী কখনও দেখেনি নির্বাচন কমিশনকে কখনও কোনও কেন্দ্র সরকার নিজেদের পকেটে রেখেছে। একমাত্র বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর থেকেই এইসব আমরা দেখতে পাচ্ছি। কয়েকদিন আগেই দেখেছি একটি বিল এনে ভারতের প্রধান বিচারপতিকে সরিয়ে প্রধানমন্ত্রী এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নিজের পছন্দমতো একজনকে নির্বাচন কমিশনার পদে বসাচ্ছে"।

শান্তনু সেন আরও বলেন, "নতুন নির্বাচন কমিশনার বিজেপির মুখপাত্র এবং নির্বাচন কমিশনের দফতর বিজেপির পার্টি অফিসে পরিণত হয়েছে। কমিশনার রাজীব কুমার নির্ঘন্ট প্রকাশের সময় বলেছিলেন, কোনও অফিসার যদি ৩ বছরের বেশি সময় ধরে একটি পদে বসে আছেন, তাহলে তাঁকে সরিয়ে অন্য কাউকে দায়িত্ব দেওয়া হবে। তাহলে পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে কেন সরানো হল? এরকম আরো সমস্যা ভোট আসার আগে তৈরি হবে, তাই আমরা চাই সুপ্রিম কোর্টের নজরদারিতে এবারের লোকসভা নির্বাচন হোক"।