MEA Recalls Ambassador Renu Pall: আর্থিক তছরূপের অভিযোগ অস্ট্রিয়া থেকে রাষ্ট্রদূতকে ফেরাচ্ছে বিদেশ মন্ত্রক
রাষ্ট্রদূত রেণু পাল(Photo Credit: Twitter)

নতুন দিল্লি, ৩০ ডিসেম্বর: ভুল হিসেব দেখিয়ে সরকারি টাকা আত্মস্যাৎ, মাস গেলে ভারতীয় মুদ্রায় ২৫ লক্ষ টাকা বাড়ি ভাড়া বাবদ খরচ। একের পর আর্থিক তছরূপের অভিযোগে অস্ট্রিয়া (Austria) থেকে রাষ্ট্রদূতকে ফেরাচ্ছে নয়াদিল্লি। ওই রাষ্ট্রদূতের নাম রেণু পাল (Renu Pall)। আগামী মাসেই অস্ট্রিয়াতে তাঁর রাষ্ট্রদূত পদের মেয়াদ ফুরোচ্ছে। তার আগেই সেন্ট্রাল ভিজিল্যান্স দপ্তরের রিপোর্টে দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন রেণু পাল। সঙ্গে সঙ্গেই তাঁকে ভারতীয় দূতাবাসের সদর দপ্তরে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়। ইতিমধ্যেই রেণু পলের সমস্ত প্রশাসনিক এবং অর্থনৈতিক দায়িত্ব কেড়ে নেওয়া হয়েছে। আগামী রবিবার তাঁকে দেশে ফেরানোর পর শাস্তি ও সংশ্লিষ্ট বিষয়ের কার্যক্রম নিয়ে তৎপর হবে কেন্দ্র।

উল্লেখ্য, ১৯৮৮ সালের আইএএস ব্যাচের ইন্ডিয়ান ফরেন সার্ভিস অফিসার রেণু পাল। অস্ট্রিয়ায় ভারতীয় রাষ্ট্রদূত হিসাবে আগামী মাসেই মেয়াদ শেষ হওয়ার কথা ছিল তাঁর। তার মধ্যেই এই ঘটনা। কূটনীতিক হিসাবে বেশ কিছু সুযোগ-সুবিধা পেতেন রেণু। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ, ভুল হিসাব দেখিয়ে খরচের চেয়েও বেশি টাকা তুলেছিলেন তিনি। সরকারি অনুমতি না নিয়েই ইচ্ছামতো টাকাও খরচ করেছিলেন। কোটি কোটি টাকা খরচ করে সেখানে বাড়ি সাজানোর অভিযোগও উঠে এসেছে তাঁর বিরুদ্ধে। সরকারি টাকার এই নয়ছয় নজরে আসতেই নড়েচড়ে বসে সেন্ট্রাল ভিজিল্যান্স কমিশন (সিভিসি) এবং বিদেশমন্ত্রক। অভিযোগ খতিয়ে দেখতে সেপ্টেম্বরে ভিয়েনা পৌঁছায় সিভিসির একটি দল। নিজেদের রিপোর্টে রেণু পালের বিরুদ্ধে আর্থিক বেনিয়ম এবং সরকারি টাকা অপচয়ের অভিযোগ তোলা হয়। কারণ তদন্তে তাঁর বিরুদ্ধে সরকারি অর্থের অপব্যবহারের অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে। আরও পড়ুন-Maharashtra Cabinet Expansion Today: আজ মহারাষ্ট্রে মন্ত্রিসভার সম্প্রসারণ, উপমুখ্যমন্ত্রীর পদে অজিত পাওয়ার, মন্ত্রিত্ব পাচ্ছেন আদিত্য ঠাকরে

তদন্ত রিপোর্টে বলা হয়, অভিযুক্ত অফিসার আর্থিক অনিয়ম করেছেন। বিদেশ মন্ত্রকের প্রত্যেক কর্মীকে যে বিধিনিষেধ মানতে হয়, তাও মানেননি। গত ৯ ডিসেম্বর রেণু পালকে হেড কোয়ার্টারসে বদলি করে দেয়। তাঁকে সরকারি অর্থ খরচ করতেও নিষেধ করা হয়। এবার দেশে ফিরে এলেই বাকি ব্যবস্থা নেবে বিদেশ মন্ত্রক (Ministry of External Affairs)।