কর্পোরেট কর হ্রাসের দাওয়াইতেই ঊর্ধমূখী সূচক, নির্মলা সীতামণের সিদ্ধান্তকে ঐতিহাসিক বললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি

দিল্লি, ২০ সেপ্টেম্বর: রুগ্ন অর্থনীতিকে চাঙ্গা করার উদ্যোগ যে নেওয়া হবে, তা আগেই ঘোষণা করেছিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। শুক্রবারের কেন্দ্রীয় সরকারের বড়সড় সিদ্ধান্তে নতুন করে বিনিয়োগের আশা দেখছে বাজার। বিশেষজ্ঞদের মতে, কর হ্রাস করার সিদ্ধান্ত-সহ অর্থনীতি চাঙ্গা করার একাধিক সরকারি পদক্ষেপের জেরে প্রভাবিত হয়েছেন বিনিয়োগকারীরা। শুক্রবার গোয়ায় এক সাংবাদিক সম্মেলনে সকালেই দেশীয় কর্পোরেট সংস্থার উপর থেকে করের বোঝা কমানো বিষয়টি ঘোষণা করেন নির্মলা সীতারমণ। এখন ৩০ শতাংশ কমে ২৫.১৭ শতাংশ হল নয়া করের পরিমাণ। এর মধ্যে সারচার্জ এবং সেসও যুক্ত করা হয়েছে। এই অর্থবর্ষ থেকে নয়া কর কার্যকর হবে বলেই জানান তিনি।

কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর এই করের বোঝা (corporate tax rate) কমানোর সিদ্ধান্তে বেজায় খুশি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি এই সিদ্ধান্তকে ঐতিহাসিক বলেছেন, তাঁর মতে এবার মেকইন ইন্ডিয়া আরও এক ধাপ এগিয়ে গেল। এতে ব্যাবসায়িক ক্ষেত্রে প্রতিযোগীতা বাড়বে, চাকরির সুযোগ তৈরি হবে। ১৩০ কোটির ভারত আবার লাভের মুখ দেখবে। এমনটাই মনে করেন প্রধানমন্ত্রী (PM Narendra Modi)। এদিন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী বলেন, “ফরেন পোর্টফলিও ইনভেস্টরস বা এফপিআই-আর এর উপর চড়া সারচার্জ বসানো হয়েছিল। তবে এবার থেকে দেশীয় কর্পোরেট সংস্থাগুলিকে সেই অত্যধিক করের বোঝা থেকে অব্যাহতি দেওয়া হচ্ছে।” কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর ঘোষণার কিছুক্ষণের মধ্যেই ঊর্ধ্বমুখী শেয়ার বাজার। সেনসেক্স ২০০০ এবং নিফটি ৬০০-র বেশি পয়েন্টে ঘোরাফেরা করছে। ইয়েস ব্যাংক, এইচডিএফসি ব্যাংক, মারুতি, হিরো মোটোকর্প, কোটাক ব্যাংক, এইচইউএল, এম অ্যান্ড এম, বাজাজ অটোর শেয়ারও যথেষ্ট চাঙ্গা।

এদিকে গত এক সপ্তাহ ধরে সেনসেক্স কার্যত নামছিল। শুক্রবারও তার ব্যতিক্রম ছিল না। আগের দিন বন্ধের তুলনায় কখনও সামান্য বাড়ছিল, আবার কিছুক্ষণ পরেই তা নেমে যাচ্ছিল। এই পরিস্থিতিতে শুক্রবার সাংবাদিক বৈঠক করে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী ঘোষণা করেন, দেশীয় সংস্থাগুলির জন্য কর্পোরেট কর ৩০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২৫.২ শতাংশ (সমস্ত সারচার্জ সহ) করা হচ্ছে। নয়া এই নিয়ম কার্যকর হবে ১ অক্টোবর থেকে। এছাড়াও নতুন উৎপাদন শিল্পে বিনিয়োগ করলে সে ক্ষেত্রেও বড়সড় ছাড়ের ঘোষণা করেন নির্মলা সীতারমণ। শুক্রবারের এই টনিকেও আগামী সোমবার থেকে কয়েক দিনের জন্য কিছুটা সংশোধন হতে পারে। তবে সেটা খুব বেশি নয়। অর্থাৎ আবার আগের অবস্থায় ফিরে যাবে, এমন পরস্থিতি হওয়ার সম্ভাবনা কার্যত নেই। আবার বাজার বিশেষজ্ঞদের একাংশ মনে করছেন, এটাই বাজারে স্থায়ী উত্থান হয়ে উঠতে পারে। অর্থাৎ এখান থেকে ধীরে ধীরে আরও উপরে ওঠার সম্ভাবনাও রয়েছে।