Zakir Naik: জাকির নায়েকের বক্তৃতার ওপর নিষেধাজ্ঞা মালয়েশিয়ায়, আরও কোণঠাসা ধর্মপ্রচারক
জাকির নায়েক। (Photo Credit: PTI)

কুয়ালালামপুর, ২০ অগাস্ট: Zakir Naik। আরও কোণঠাসা জাকির নায়েক। ধর্মপ্রচারক জাকির নায়কের ওপর ভারতের পর এবার মালয়েশিয়ায় ভাষণ দেওযার ওপর জারি হল নিষেধাজ্ঞা। বিতর্কিত এই ধর্মপ্রচারক আর মালয়েশিয়ায় প্রকাশ্যে বক্তৃতা দিতে পারবেন না। জাকির নায়েকের বিরুদ্ধে মালয়েশিয়ায় হিন্দুদের নামে ধর্মবিদ্বেষী মন্তব্যের অভিযোগ উঠেছে। মালয়েশিয়ার পুলিশ এই অভিযোগের তদন্তে নেমে ১০ ঘণ্টা জেরা করে জাকিরকে। তারপর মৌলবাদী ধর্মপ্রচারক জাকিরের বক্তৃতার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়।

ভারতের 'ওয়ান্টেড'তালিকায় থাকা ধর্মপ্রচারক জাকির নায়েকের স্থায়ী বাসিন্দা থাকার মর্যাদা কেড়ে নেওয়ার কথাও ভাবছে মালয়েশিয়া সরকার। MalayMail-নামের এক স্থানীয় মিডিয়ার খবর অনুযায়ী, মালয়েশিয়া সরকার এখন জাকিরের বিতর্কিত ভাষণের তদন্তের পূর্ণাঙ্গ রিপোর্টের অপেক্ষা করছে।  যদি দেখা যায় জাকির নায়েক সেখানকার সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে আপত্তিকর কতা বলছেন, তাহলে বড় সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে।

জঙ্গি সংক্রান্ত কার্যকলাপে মদত দেওয়া এবং হেট স্পিচের মাধ্যমে সমাজে হিংসা ছড়ানোর অভিযোগে ভারতে অভিযুক্ত হয়ে এখন দেশছাড়া জাকির নায়েক। মালয়েশিয়াতে তার বিরুদ্ধে উঠল সেখানকার হিন্দুদের বিরুদ্ধে আপত্তিকর মন্তব্যের অভিযোগ। মালয়েশিয়ান মিডিয়ার খবর অনুযায়ী গত ৩ অগাস্ট জাকির নায়েক এক প্রকাশ্যে বক্তৃতায় বলেছিলেন, ভারতে মুসলিমদের থেকে মালয়েশিয়ায় হিন্দুরা ১০০ বার বেশি অধিকার পেয়ে থাকেন। পাশাপাশি জাকির চিনের মালয়েশিয়ান সমাজের ওপর অসংবেদশীল মন্তব্য করেন বলে অভিযোগ। ২০১৭ সালে জাকিরের বিরুদ্ধে 'রেড কর্নার নোটিস' জারির আবেদন জানায় ভারত। যদি ভারতের সেই প্রচেষ্টা ধাক্কা খায় ইন্টারপোলে। ইন্টারপোল জানিয়ে ছিল, জাকিরের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপে যুক্ত থাকার প্রমাণ দিতে পারেনি ভারত।

৫৩ বছরের জাকির ভারতে নানা ধরনের বিতর্কিত মন্তব্য করে বছর তিনেক আগে মালয়েশিয়া যান চলে যান। সেখানকার আগের সরকার জাকিরকে স্থায়ী বাসিন্দার মর্যাদা দিয়েছিল। গত বছর জুলাইয়ে জাকিরের প্রত্যর্পণের জন্য মালয়েশিয়ার কাছে আবেদন জানিয়েছিল ভারত। চলতি বছর জানুয়ারিতে মালয়েশিয়া জাকিরের প্রত্যর্পণের জন্য আরও নথি ও প্রমাণ চায়।