NIA Attacked in East Medinipur: 'যা হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর সমর্থনে', NIA হামলার ঘটনায় রাজ্যকে নিশানা বিজেপি নেতা রাহুল সিনহার
BJP Leader Rahul Sinha (Photo Credits: ANI)

পূর্ব মেদিনীপুরের ভূপতিনগরে তদন্তে গিয়ে স্থানীয়দের দ্বারা আক্রান্ত হন এনআইএ (NIA) আধিকারিকেরা। এজেন্সির গাড়িতে ভাঙচুর চালানো হয় বলে অভিযোগ। যদিও ঘটনায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের (Mamata Banerjee) পালটা অভিযোগ, পুলিশের অনুমতি ছাড়াই রাতের অন্ধকারে তদন্তে গিয়েছিল ন্যাশনাল ইনভেস্টিগেশন এজেন্সি। গ্রামবাসী যা করেছে নিজেদের সম্মান বাঁচাতে করেছে। সন্দেশখালির (Sandeshkhali) পর পূর্ব মেদিনীপুরে (East Medinipur) কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার কাজে বাধা দেওয়া, তাঁদের উপর হামলা করার ঘটনা এবং একই সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর যুক্তিতে চটেছেন বিরোধীরা। বিজেপির প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি রাহুল সিনহা (Rahul Sinha) ঘটনার নিন্দা করে বলেন, 'এনআইএ-র উপর হামলার ঘটনায় মুখ্যমন্ত্রীর সমর্থন রয়েছে। অভিযুক্তদের পাশে দাঁড়িয়েছেন তিনি। ঠিক যেমন সন্দেশখালির ক্ষেত্রে শুরুতে করেছিলেন। যখন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সমর্থক থাকবে তখন আক্রমণ তো হবেই'।

২০২২ সালে ভূপতিনগরের নাড়ুয়াবিলা গ্রামে একটি বোমা বিস্ফোরণের মামলার (Bhupatinagar Blast Case) তদন্তে শনিবার ভূপতিনগরে যান কেন্দ্রীয় তদন্তকারী এজেন্সি। ওই ঘটনায় তিনজনের মৃত্যু হয়েছিল। শুরুতে পুলিশ ঘটনার তদন্ত করলেও পরবর্তীকালে আদালতের নির্দেশে তদন্তভার যায় এনআইএ-র (NIA) উপর। এদিন স্থানীয় দুই তৃণমূল নেতাকে জিজ্ঞসাবাদের জন্যে আটক করে গাড়িতে তুলে নিয়ে যাওয়ার সময়ে ক্ষুব্ধ গ্রামবাসী এনআইএ টিমের পথ আটকায়। বিক্ষোভ বাধে দুই দলের (গ্রামবাসী এবং এজেন্সি) মধ্যে। এজেন্সির গাড়িতে ভাঙচুর চালানো হয় বলে অভিযোগ উঠেছে।

ভোটের মুখে রাজ্যে দুর্নীতি দমনে তৎপর হয়েছে কেন্দ্র সরকার। তবে কেন্দ্রীয় এজেন্সির উপর হামলার ঘটনা যে হারে বাড়তে শুরু করেছে, তেতে সময় থাকতেই কড়া ব্যবস্থা নিতে এবং সুষ্ঠু ভাবে ভোট প্রক্রিয়া সমন্ন করার জন্যে নির্বাচন কমিশনকে অনুরোধ করেছেন বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা।