Governor To Mamata Banerjee: মমতা ব্যানার্জিকে ফের চার পাতার চিঠি দিয়ে রাজ্যে রাজনৈতিক মতপ্রকাশের কণ্ঠরোধ হওয়ার দাবি করলেন রাজ্যপাল
রাজ্যপাল জগদীপ ধনখর (Photo: Facebook)

কলকাতা, ৪ মে: ‘রাজনৈতিক মতপ্রকাশের অধিকারের কণ্ঠরোধ হচ্ছে রাজ্যে’, মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিকে (Mamata Banerjee) খোঁচা দিয়ে চিঠির জবাবে ফের চার পাতার চিঠি দিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড় (Jagdeep Dhankhar)। তিনি টুইটে মমতা ব্যানার্জিকে ট্যাগ করে আরও লেখেন-"আসুন, জনগণের অনুভূতির প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে আমরা এটিকে নিবিড় করে তুলি এবং একত্রে জনগণের সেবায় ডুবে যাই, অতীতে যা ঘটেছে তা বর্জন করি এবং কোভিড -১৯-কে পরাজিত করার জন্য অপেক্ষা করি।"

করোনা পরিস্থিতিতে লাগাতার রাজ্যপাল-মুখ্যমন্ত্রী সংঘাত ও চিঠি চালাচালি অব্যাহত। কিছুদিন আগে রাজ্যপালের বিরুদ্ধে সাংবিধানিক ধর্ম ও শিষ্টতার গণ্ডি ছাড়ানোর পাশাপাশি, তাঁর সরকারের মন্ত্রী-আমলাদের আক্রমণ এবং রাজ্যের প্রশাসনিক কাজে হস্তক্ষেপের অভিযোগ তোলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। চিঠিতে মমতা ব্যানার্জি জানিয়েছেন, স্বাধীন ভারতের ইতিহাসে কোনও রাজ্যপাল এমন ঘটনা করেননি। চিঠিতে রাজ্যপালের ভাষা অত্যন্ত অপমানজনক এবং নজিরবিহীন বলে দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী। একইসঙ্গে তিনি আরও বলেন, দেশের সাংবিধানিক এবং রাজনৈতিক ইতিহাসে এই ঘটনা নজিরবিহীন। পাশাপাশি চিঠিতে রাজ্যাপাল পদটির সাংবিধানিক সীমাবদ্ধতার কথাও জগদীপ ধনখড়কে স্মরণ করিয়ে দিলেন তিনি। চিঠিতে মমতা স্পষ্ট লিখেছেন, ‘মুখ্যমন্ত্রীর প্রতি এমন ভাষা প্রয়োগের নজির নেই।’ সুপ্রিম কোর্টের একাধিক রায় উল্লেখ করা হয়েছে চিঠিতে। করোনা দুর্যোগ পরিস্থিতিতে রাজ্যপালের রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে এহেন ব্যবহারের তীব্র সমালোচনা করেছেন তিনি। আরও পড়ুন, 'আপনার চিঠির মাথামুন্ডু নেই!' মমতা ব্যানার্জিকে পাল্টা রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের

এর উত্তরে মমতা ব্যানার্জির চিঠিকেই ভিত্তিহীন বলে দাবি করেন রাজ্যপাল। জগদীপের স্পষ্ট বক্তব্য, মুখ্যমন্ত্রী চিঠির কোনও ‘মাথামুন্ডু’ নেই। একইসঙ্গে তিনি মমতার কাছে আর্জি জানিয়েছেন, রাজ্য এই মুহূর্তে কঠিন পরিস্থিতির সম্মুখীন হয়েছে। এটি লড়াই কিংবা সমালোচনার সময় নয়। বরং পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে একসঙ্গে হাত মিলিয়ে কাজ করা উচিত।