Cyclone Bulbul: প্রবল শক্তি বাড়িয়ে আজ সন্ধেয় আছড়ে পড়তে চলেছে ঘূর্ণিঝড় 'বুলবুল', প্রভাব ঠেকাতে তৈরি প্রশাসন
ঘূর্ণিঝড়/ প্রতীকী ছবি (Photo Credits: PTI)

কলকাতা, ৯ নভেম্বর: গতি বাড়িয়ে ধেয়ে আসছে 'বুলবুল' (Bulbul) আতঙ্ক। পশ্চিমবঙ্গ (West Bengal) ও বাংলাদেশের (Bangladesh) দিকে ভয়ঙ্কর রূপ নিয়ে ছুটে যাচ্ছে ঘূর্ণিঝড় (Cyclone)। সাগর দ্বীপ (Sagar Island) থেকে মাত্র ১৯০ কিলোমিটার দূরে রয়েছে অতি ভয়ঙ্কর এই ঘূর্ণিঝড়টি। কলকাতা থেকে ৩০০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে এই ঘূর্ণিঝড়। সুন্দরবনে আগে থেকেই সতর্কতা জারি করা হয়েছে। সকাল থেকে উপকূলবর্তী জেলাগুলোতে শুরু হয়েছে তুমুল বৃষ্টি, সঙ্গে বইছে ঝোড়ো হাওয়া। কলকাতাতেও চলছে বৃষ্টি। সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়া।

আবহাওয়া দফতরের (IMD) খবর অনুযায়ী, শনিবার রাত ৮টা থেকে ১২টার মধ্যে এ রাজ্যের সাগর দ্বীপ ও বাংলাদেশের খেপুপাড়ার মধ্যবর্তী এলাকায় আছড়ে পড়তে চলেছে বুলবুল। এই মুহূর্তে ঘূর্ণিঝড়টি বাংলাদেশের খেপুপাড়া থেকে ৩৪০ কিলোমিটার দূরে রয়েছে। পূর্ব ও উত্তরপূর্বের ওড়িশার পারাদ্বীপ (Odisha Paradip) থেকে ১১৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে এটি। দক্ষিণপূর্বে চন্দাবলী থেকে ১১০ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছে। আবহাওয়া বিজ্ঞানীদের অনুমান, বুলবুল আছড়ে পড়ার সময় এর গতিবেগ থাকবে ১১০-১২০ কিলোমিটারের আশপাশে। কোথাও কোথাও এর গতিবেগ হতে পারে ১৩৫ কিলোমিটারের কাছাকাছি। এই ভয়ঙ্কর ঘূর্ণিঝড়ের মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করছে প্রশাসনও। আরও পড়ুন, নিষেধাজ্ঞার পরও রাজ্যে দেদার বিক্রি গুটখা ও পান মশলা

 

গতকাল দক্ষিণ ২৪ পরগনার (South 24 Parganas) মতো উপকূলবর্তী জেলায় খোলা হয়েছে কন্ট্রোলরুম (Control room)। জেলার উপকূলবর্তী ব্লক এলাকায় প্রায় ৩০০ ফ্লাড সেন্টারকে তৈরি রাখা হয়েছে। সোমবার পর্যন্ত উপকূলবর্তী সমগ্র ব্লক ও পঞ্চায়েত অফিসে খোলা হয়েছে কন্ট্রোলরুম। সুন্দরবনের বাসিন্দাদের সচেতন করতে মাইকিং করা হয়েছে। পঞ্চায়েত ও ব্লক অফিসে শুকনো খাবার ও ত্রিপল মজুত করার কাজ চলছে। ঝড় শুরু হলে নদীতে মাছ ধরতে যাওয়ার নিষেধাজ্ঞাও জারি রয়েছে।