Draupadi Murmu: ওডিশার আদিবাসী মহিলা দ্রৌপদী মুর্মু-কে রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী বাছল বিজেপি, যশবন্ত সিনহা-র বিরুদ্ধে জয় প্রায় নিশ্চিত
Draupadi Murmu. (Photo Credits: Twitter)

নতুন দিল্লি, ২১ জুন:  দেশের রাষ্ট্রপতি পদে বসতে চলেছেন এক আদিবাসী সাঁওতাল মহিলা। ভেঙ্কাইয়া নাইডু থেকে অর্জুন মুন্ডা, রাজনাথ সিং। এমনকী অজিত দোভাল, কে শিবান- অনেকগুলো নাম নিয়েই জল্পনা ছিল। শেষ অবধি ওডিশার আদিবাসী সাঁওতাল মহিলা দ্রৌপদী মুর্মু( Draupadi Murmu) -কে রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হিসেবে বেছে নিল দেশের শাসক দল বিজেপির নেতৃত্বে থাকা এনডিএ (NDA)। যেখানে দেশের ১৭টি অবিজেপি বিরোধী জোটের রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী হয়েছেন যশবন্ত সিনহা। আগামী ১৮ জুলাই হতে চলেছে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন। সংখ্যার বিচারে বিজেপি-র নেতৃত্বে থাকা এনডিএ-র প্রার্থী দ্রৌপদী মুর্মু-র জয় প্রায় নিশ্চিত। এর ফলে ভারত এই প্রথম ওডিশার কোনও নাগরিককে রাষ্ট্রপতি হিসেবে পেতে চলেছে। গতকাল, সোমবার তাঁর ৬৪তম জন্মদিনের কেক কেটেছিলেন দ্রৌপদী মুর্মু।

ওডিশার মহিলা হওয়ায় এনডিএ-র বাইরে থাকা নবীন পট্টনায়েকের বিজু জনতা দলের নিশ্চিতভাবেই সমর্থন পাবেন দ্রৌপদী মুর্মু। সব মিলিয়ে রামনাথ কোবিন্দের উত্তরসুরি হওয়া দ্রৌপদী -র সময়ের অপেক্ষা বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। তবে এখন দেখার ২০১৭-র চেয়ে কঠিন হয় কি না এবারের রাষ্ট্রপতি নির্বাচন। গতবার কংগ্রেসের প্রার্থী মীরা কুমারকে হারিয়ে রাষ্ট্রপতি হয়েছিলেন রামনাথ কোবিন্দ। তবে হারলেও ৩৪.৩৫ শতাংশ ভোট পেয়েছিলেন মীরা কুমার। এবার বিরোধী জোটের প্রার্থী যশবন্ত সিনহা কতটা লড়াই দিতে পারেন সেটাই দেখার।

পাশাপাশি এই প্রথম আদিবাসী সম্প্রদায়ের মানুষ দেশের প্রথম নাগরিক হতে চলেছেন। ২০০৭ সালে প্রথমবার ভারতের মহিলা রাষ্ট্রপতি হয়েছিলেন প্রতিভা পাটিল। প্রতিভা পাটিলের পর দ্বিতীয় মহিলা হিসেবে দ্রৌপদী মুর্মু দেশের রাষ্ট্রপতি হতে চলেছেন। আরও পড়ুন: তৃণমূল ছেড়ে বিরোধী জোটের রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী যশবন্ত সিনহা, ঘোষণা জয়রাম রমেশের

দেখুন টুইট

ঝাড়খণ্ডের প্রথম মহিলা রাজ্যপাল ছিলেন দ্রৌপদী মুর্মু। ১৯৫৮ সালে ময়ূরভঞ্জ জেলায় জন্মগ্রহণ করেন তিনি। সাঁওতাল সম্প্রদায়ের মানুষ দ্রৌপদী ছিলেন বিজেপি-র একনিষ্ঠ কর্মী। তিনি তাঁর স্বামী ও দুই পুত্র সন্তানকে হারান। ২০০০ সালে ওডিশায় বিজু জনতা দলের সঙ্গে জোটে থাকা বিজেপি-র মন্ত্রী হয়েছিলেন তিনি। ওডিশার মতস, পশুপালন ও প্রাণী সম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকের দায়িত্বে ছিলেন তিনি।