দক্ষিণবঙ্গকে আশায় রেখে ওড়িশায় বর্ষা আনছে নিম্নচাপ, রাজ্যে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির সম্ভাবনা
বর্ষা আসছে বঙ্গে | (Photo Credits: PTI)

কলকাতা, ১জুলাই: বৃষ্টি এসেও আসছে না, শহর কলকাতা-সহ দক্ষিণ বঙ্গকে থেকে থেকে ফাঁকি দিয়ে যাচ্ছে মৌসুমী বায়ু। তাই আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের পূর্বাভাস থাকা সত্ত্বেও বৃষ্টি এবারও দক্ষিণবঙ্গকে বিমুখ করে ওড়িশার দিকে অগ্রসর হয়েছে। সোমবার নিম্নচাপটি উত্তর পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে সরে গিয়েছে, তাই বর্ষার বৃষ্টিপাত দিক বদল করে এখন ওড়িশাতেই ঘাঁটি গেড়েছে। এর জেরে রাজ্যের পশ্চিমের জেলাগুলিতে বৃষ্টি হলেও  ধক্ষিণবঙ্গের বেশিরভাগ জেলায় বর্ষার বৃষ্টি হচ্ছে না, তবে মৌসুমী বায়ুর প্রভাবে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিপাত হতে পারে।  আরও পড়ুন- Save Water Drive: নরেন্দ্র মোদির পথে হেঁটে এবার রাজ্যেও জল বাঁচাও দিবস পালন করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি

আজ দিনভর উত্তর ২৪ পরগণা ও কলকাতায় চল মেঘ রোদ্দুরে লুকোচুরি। দুপুরে ঝমঝমিয়ে বৃষ্টি দেখল শহর। সন্ধ্যার আগেই জেলার আকাশ কালো করে সেজে এসেছে। তবে এই পর্যন্তই, সেই অর্থে বৃষ্টির কোনও দেখা নেই। আলিপুর হাওয়া অফিসের খবর যা বলছে তাতে এদিন পুরুলিয়া, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, দুই ২৪ পরগনা, দুই বর্ধমান, হাওড়া, হুগলিতে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি হবে। কিন্তু বুধবারের পর থেকে বৃষ্টি কমবে। এমনিতেই অনেকটা সময় পরে (সাধারণত উত্তরঙ্গে ৫ জুন এবং দক্ষিণবঙ্গে ৮ জুন বর্ষার আগমন ঘটে) এ রাজ্যে পা রেখেছে মৌসুমী বায়ু। কিন্তু এ বছর দুর্বল মৌসুমী বায়ুর প্রভাব বর্ষার দক্ষিণবঙ্গে বৃষ্টি প্রায় নেই বলেই চলে। উত্তর-পশ্চিম বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপের হাত ধরে আষাঢ় মাসে বর্ষার বৃষ্টি বাড়াবে বলে মনে করা হচ্ছিল। কিন্তু এই নিম্নচাপটিও সরে যাচ্ছে ওড়িশার দিকে।

দিন দুয়েক আগেই বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ সৃষ্টির কথা বলেছিল হাওয়া অফিস। একই সঙ্গে অন্ধ্র ওড়িশা উপকূলে ঘূর্ণাবর্তের কথাও সেসময় বলা হয়। এই দুইয়ের প্রভাবে রাজ্যে মৌসুমী বায়ু শক্তি সঞ্চয় করে পুরো দমে বর্ষাকে নিয়ে ঝাঁপাবে। রোদে গরমে অতিষ্ঠ বঙ্গবাসী এই খবরে আশার আলো দেখে। কিন্তু বাস্তবটা বড়ই কঠিন। সেখানে বৃষ্টির লেশ মাত্র নেই। যদিও সকাল থেকে আকাশ কালো করে দুএকবার বৃষ্টি এলেও তা বর্ষার ধারে কাছে দিয়েও যায়নি। এই প্রসহ্গে আলিপুর হাওয়া অফিসের কর্তা গণেশ দাস জানিয়েছেন, মৌসুমী বায়ুর প্রভাব কমেছে, কেননা নিম্নচাপ ওড়িশার দিকে সরে গিয়েছে। এখানে আর নিম্নচাপ নেই। তবে সামান্য হলেও বর্ষার বৃষ্টি চলবে।