Vice President Venkaiah Naidu: মহিলাদের অস্ত্রশস্ত্র সঙ্গে রাখার প্রয়োজন নেই, অন্যরাই তাঁদের রক্ষা করবেন, সংসদে বললেন বেঙ্কাইয়া নায়ডু
উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নায়ডু (Photo Credit: ANI)

নতুন দিল্লি, ১১ ডিসেম্বর: বুধবার রাজ্যসভার দ্বিতীয়ার্ধে পাস হয় অস্ত্র সংশোধনী বিল ২০১৯ (Arms (Amendment) Bill, 2019)। বিল পাসের সময় যখন লাইসেন্স প্রাপ্ত আগ্নেয়াস্ত্র সঙ্গে রাখার প্রসঙ্গ ওঠে তখনই মহিলা সাংসদরা নিজেদের বক্তব্য পেশে উদগ্রীব হন। এক মহিলা সাংসদ নিরাপত্তার জন্য লাইসেন্স প্রাপ্ত আগ্নেয়াস্ত্র সঙ্গে রাখার কথা বলতে না বলতেই অধ্যক্ষ এম বেঙ্কাইয়া নায়ডু (M Venkaiah Naidu) বলে ওঠেন, “মহিলাদের আগ্নেয়াস্ত্র রাখার প্রয়োজন নেই, অন্যরা তাঁদের রক্ষা করবেন।” মূলত দুই মহিলা সাংসদ আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে বক্তব্য রাখার ইচ্ছে প্রকাশ করতেই একথা বলেন উপরাষ্ট্রপতি। তিনি বলেন, “আমার মতে মহিলাদের আগ্নেয়াস্ত্র সঙ্গে রাখার প্রয়োজন নেই। অন্যরা তাঁদের রক্ষা করবেন।”

এরপরই সংসদে বিজেপি সাংসদ রূপা গাঙ্গুলি (Bharatiya Janata Party MP Roopa Ganguly) বলেন, তিনি আগ্নেয়াস্ত্র্র ব্যবহার ভালমতো জানেন। শৈশবে এই আগ্নেয়াস্ত্র চালনা তাঁর কাছে খেলার মতো ছিল। ১৯৫৯ সালে অস্ত্র আইনটি পাস হয়েছে। গত সোমবার লোকসভায় এই অস্ত্র আইনের যে নতুন সংশোধনী বিল তৈরি হয়েছে তার খসড়া পাস হয়েছে। নতুন সংশোধনীতে বেশকিছু পরিমার্জন ও সংযোজন ঘটেছে। নতুন নিয়মে কোনও ব্যক্তি দুটির বেশি লাইসেন্স প্রাপ্ত আগ্নেয়াস্ত্র রাখতে পারবেন না। এবং অকারণে এই আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহার করলে এতদিন যে সাজার নির্দেশিকা ছিল তারও বদল হবে। অবৈধ অস্ত্র ব্যবসায়ীরা ধরা পড়লে এই আইনের আওতায় বড়সড় জরিমানার সম্মুখীন হবে। আরও পড়ুন-Clean Chit To PM Narendra Modi: গুজরাট দাঙ্গা নিয়ন্ত্রণে গড়িমসি করেনি তৎকালীন সরকার, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ক্লিনচিট দিল নানাবতী কমিশন

উল্লেখ্য, কোনও নিরাপত্তারক্ষীর থেকে আগ্নেয়াস্ত্র ছিনতাই করলে অপরাধীর জন্য দশ বছরের সশ্রম কারাদণ্ডের সাজা রয়েছে।  যদি কেউ শখ করে গুলি চালায়, আর সেকারণে অন্যের ব্যক্তিগত নিরাপত্তা বিপন্ন হলে, আগ্নেয়াস্ত্র ব্যবহারকারীকে দু’বছরের জন্য জেল খাটতে হবে। অথবা ১ লক্ষ টাকা পর্যন্ত জরিমানা গুনতে হতে পারে। মূলত বর্তমানে বিয়ের আসরে বিভিন্ন ধর্মী অনুষ্ঠানে শখে গুলি চালানোর ঘটনা ঘটছে, এসব বন্ধ করতেই অস্ত্র আইনে এই নয়া সংশোধনী যোগ হচ্ছে।