Congress Working Committee Meet: নতুন সভাপতি খুঁজে নিন, কংগ্রেসের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে বললেন সোনিয়া গান্ধী
ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে সোনিয়া গান্ধী (Photo Credits: ANI)

নতুন দিল্লি, ২৪ আগস্ট: সোমবার দলের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে নতুন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আবেদন জানালেন কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন সোনিয়া গান্ধী (Sonia Gandhi)। সিএনএন ও নিউজ-১৮-এর রিপোর্ট অনুসারে, শ্রীমতী গান্ধী তাঁর বক্তব্যের মধ্যে দলের অন্তর্বর্তী সভাপতির পদ ছাড়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন। যদিও প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং সোনিয়া গন্ধীকেই দলীয় সভাপতির পদে থাকার অনুরোধ জানিয়েছেন। সংবাদ সংস্থা এএনআই জানাচ্ছে, কিছুদিন আগে কংগ্রেসের ২৩ জন বিশিষ্ট নেতা একটি চিঠিতে হাইকম্যান্ডকে লিখেছিলেন, দলে নেতৃত্ব নিয়ে একপ্রকার অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হয়েছে। তাতে কর্মীদের মনোবল নষ্ট হচ্ছে। এরপর সোমবার কংগ্রেসের ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে দলের বর্তমান সভানেত্রী সনিয়া গান্ধী স্পষ্ট বলেন, তিনি আর কংগ্রেসকে নেতৃত্ব দিতে আগ্রহী নন। দল যেন নতুন নেতৃত্ব খুঁজে নেয়।

গত ৭ অগাস্ট বিক্ষুব্ধরা কংগ্রেস হাইকম্যান্ডকে চিঠি দেন। চিঠির নীচে সই করেছিলেন কংগ্রেসের কয়েকজন প্রথম সারির নেতা। তাঁদের মধ্যে ছিলেন কপিল সিব্বল, শশী তারুর, গুলাম নবি আজাদ, পৃথ্বীরাজ চৌহান, বিবেক তানখা ও আনন্দ শর্মা। চিঠিতে লেখা হয়েছে, কংগ্রেস যৌথ নেতৃত্বে বিশ্বাসী। গান্ধী পরিবারকেও সেই নেতৃত্ব মেনে চলতে হবে। চিঠিতে স্বাক্ষরকারীরা গান্ধী পরিবারের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করেছেন বলে পর্যবেক্ষকদের ধারণা। এই চিঠিকে কেন্দ্র করেই দলের অন্দরে মতবিরোধ দানা বেঁধেছে। অনেকের ধারণা, রাহুল যাতে ফের কংগ্রেস সভাপতি না হতে পারেন, সেজন্যই ‘বিদ্রোহীরা’ চিঠি লিখেছেন। রাহুলকে সভাপতি পদে ফিরিয়ে আনার জন্য কয়েক সপ্তাহ ধররে জোর চেষ্টা চলছে কংগ্রেসের অভ্যন্তরে। রাহুল অবশ্য ঘনিষ্ঠ মহলে জানিয়েছেন তিনি আর দলের নেতৃত্ব দেবেন না। আরও পড়ুন-Brazilian President Jair Bolsonaro: ফার্স্ট লেডির দূর্নীতি যোগ নিয়ে প্রশ্ন, সাংবাদিককে ঘুষি মারার হুমকি দিলেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট

নেতৃত্ব থেকে অবসর চাইলেন সোনিয়া গান্ধী

এদিকে কংগ্রেসের চারজন মুখ্যমন্ত্রী ও কয়েকজন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি চিঠি লিখে সনিয়া গান্ধীকে নেতৃত্ব দিতে অনুরোধ করেন। প্রথম সারির কংগ্রেস নেতা অমরিন্দর সিং, ভূপেশ বাগেল ও সিদ্দারামাইয়া বলেন, “সনিয়া গান্ধী যতদিন চান ততদিনই কংগ্রেসের শীর্ষস্থানে থাকতে পারেন। তাঁর পরে ওই পদে আসবেন রাহুল গান্ধী। কারণ কংগ্রেস সভাপতি হওয়ার যোগ্যতা তাঁর আছে।” প্রবীণ কংগ্রেস নেতা অশোক গেহলত চান, দলীয় সভাপতির পদেই থাকুন সোনিয়া গান্ধী। একই মত পশ্চিমবঙ্গের কংগ্রেস সাংসদ অধীর রঞ্জন চৌধুরীরও। এই তালিকায় রয়েছেন দলীয় সাংসদ বি মানিকম ঠাকুর, কর্মাটকের কংগ্রেস নেতা ডিকে শিবকুমার প্রমুখ।