Jharkhand: বিধানসভায় চম্পইয়ের ভাগ্য নির্ধারণ, আস্থা ভোটে অংশ জেলবন্দি হেমন্তের
Champai Soren (Photo Credits: X)

রাঁচি, ৫ ফেব্রুয়ারিঃ ঝাড়খণ্ডে (Jharkhand) আজ টানটান উত্তেজনা। সদ্য মুখ্যমন্ত্রী পদে শপথ নেওয়া চম্পই সোরেনের (Champai Soren) অগ্নিপরীক্ষা আজ। রাজ্য বিধানসভায় আজ আস্থা ভোট। বিধায়কদের সংখ্যাগরিষ্ঠের সমর্থন পেলে তবেই সরকার এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবেন চম্পই। ইতিমধ্যেই বিধানসভায় পৌঁছে গিয়েছেন তিনি। আনা হয়েছে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেনকে (Hemant Soren)। যিনি বর্তমানে জমি কেলেঙ্কারি মামালায় অভিযুক্ত হয়ে ইডি হেফাজতে রয়েছে। ইডি আধিকারিকদের সঙ্গে এদিন হেমন্ত এসেছেন বিধানসভায়। অংশ নেবেন আস্থা ভোটে। চম্পই সোরেনের নেতৃত্বাধীন ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চার (JMM) জন্যে আজকের এই আস্থা ভোট খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বিধায়কদের সমর্থনের ভিত্তিতেই চম্পইয়ের ভাগ্য নির্ধারিত হবে।

ঝাড়খণ্ডে (Jharkhnad) ক্ষমতাসীন জোটে তিনটি দল রয়েছে। ঝাড়খণ্ড মুক্তি মোর্চা, কংগ্রেস এবং রাষ্ট্রীয় জনতা দল (RJD)। বিধানসভায় ৮১টি বিধায়কের মধ্যে ৪৭ জন বিধায়ক রয়েছে জোটের। এছাড়া একজন বাম বিধায়কের সমর্থনও রয়েছে তাঁদের কাছে।

বিধানসভায় এলেন হেমন্ত...  

আস্থা ভোটের আগে বিধায়কদের যাতে ভাঙাতে না পারে বিরোধী শিবির সেই লক্ষ্যে চম্পই শপথ নেওয়ার পরেই ক্ষমতাসীন জোটের ৩৭ জন বিধায়ককে হায়দরাবাদের রিসোর্টে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছিল। একসঙ্গে সকলকে সেখানে রাখা হয়। যাতে বিরোধী পক্ষের কেউ তাঁদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে না পারে। গতকাল রবিবার রাঁচি (Ranchi) ফিরিয়ে আনা হয়েছে ওই বিধায়কদের। ৮১ আসনের বিধানসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণের জন্য চম্পইয়ের প্রয়োজন ৪১ বিধায়কের সমর্থন। রাজ্যপালের কাছে ৪৩ বিধায়ক চম্পাই সরকারকে সমর্থন জানিয়ে চিঠি দিয়েছে আগেই। পরে সমর্থন জানিয়েছেন আরও চারজন। আদালতের অনুমতি পেয়ে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সরেনও আজ আস্থা ভোটে অংশ নেবেন।