Mann Ki Baat Highlights: 'মন কি বাত' প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির, এক নজরে তাঁর বক্তব্য
মন কি বাত অনুষ্ঠানে নরেন্দ্র মোদি (Photo Credits: PTI)

নতুন দিল্লি, ৩০ অগাস্ট: আজ মাসিক রেডিও অনুষ্ঠান 'মন কি বাতে' (Mann Ki Baat) ভাষণ দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Narendra Modi)। সকাল ১১ টায় শুরু হয় সেই অনুষ্ঠান। এর আগে প্রধানমন্ত্রী 'মন কি বাতের' জন্য নাগরিকদের থেকে পরামর্শ চান। আগের রেডিও অনুষ্ঠান ছিল কারগিল বিজয় দিবসের দিন। ওই দিন প্রধানমন্ত্রী মোদি পাকিস্তানের কড়া সমালোচনা করেন। তিনি বলেছিলেন যে ভারতের বন্ধুত্বপূর্ণ প্রয়াসের জবাবে পাকিস্তান পেছন থেকে ছুরি মারার চেষ্টা করেছিল। আজ 'মন কি বাত' অনুষ্ঠানে দেশীয় খেলনা উৎপাদনে জোর দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। জানালেন, খেলনা নিয়ে আত্মনির্ভর হওয়ার গুরুত্বও।

এক নজরে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য:

  • দেশে অনুষ্ঠিত প্রতিটি অনুষ্ঠানে এই ধরণের ধৈর্য ও সরলতার সাক্ষী এখন নজিরবিহীন
  • এমনকি করোনার এই সময়েও আমাদের কৃষকরা তাঁদের দক্ষতা প্রমাণ করেছেন
  • করোনার সময় দেশ এক সঙ্গে অনেকগুলি ফ্রন্টে লড়াই করছে। তবে একই সঙ্গে, যে প্রশ্নটি প্রায়শই মনে আসে তা হল, আমার ছোটো ছোটো বন্ধুরা কীভাবে এতক্ষণ বাড়িত বন্দী অবস্থায় সময় কাটাচ্ছে
  • বন্ধুরা, বাচ্চাদের সঠিক বিকাশর জন্য খেলা ও খেনলার গুরুত্ব আছে
  • ন্যাশনাল এডুকেশন পলিসিতে খেলনা নিয়ে বাচ্চাদের জীবনের বিভিন্ন দিকের প্রভাবের প্রতি প্রচুর দৃষ্টি দেওয়া হয়েছে
  • বন্ধুরা, আমাদের দেশে স্থানীয় খেলনাগুলির একটি সমৃদ্ধ ঐতিহ্য রয়েছে। অনেক প্রতিভাবান এবং দক্ষ কারিগর আছেন যারা ভালো খেলনা তৈরিতে দক্ষ
  • ভারতের কয়েকটি অংশ খেলনার কেন্দ্র হিসাবে বিকাশ লাভ করছে। যেমন, কর্নাটকের রামনগরমের চান্নাপত্তন, কৃষ্ণের কোন্ডাপল্লী, তামিলনাড়ুর তানজাবুর, অসমের ধুবাড়ী।
  • খেলনা এমন হওয়া উচিত যাতে বাচ্চাদের শৈশব প্রস্ফুটিত হয়। আসুন, এমন খেলনা তৈরি করুন যা পরিবেশের পক্ষেও অনুকূল
  • বিশ্বে খেলনার বাজার ৭ লক্ষ কোটি টাকার। কিন্তু তাতে ভারতের অংশীদারিত্ব খুবই কম
  • এখন সময় এসেছে "টিম আপ ফর টয়েজ" প্রকল্প শুরু করার। এটা অনেকটাই আমাদের "ভোকাল ফর লোকাল"-এর সঙ্গে মানানসই।
  • একইভাবে কম্পিউটার এবং স্মার্টফোনের এই যুগে কম্পিউটার গেমের একটি বড় প্রবণতা রয়েছে। এই গেমগুলি বাচ্চারা এবং প্রাপ্তবয়স্করাও খেলে। তবে এই গেমগুলিতেও থিম বেশিরভাগ বাইরের। তাই সবাইকে খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে হবে এবং এর মধ্যে একটি সুযোগও রয়েছে
  • প্রত্যেকেই ভারতীয়দের উদ্ভাবন, সমাধান প্রদানের সক্ষমতা স্বীকার করে। যখন উৎসর্গ এবং সংবেদনশীলতা থাকে এই শক্তি সীমাহীন হয়ে যায়।
  • আমাদের বাচ্চাদের জন্য, শিক্ষার্থীদের জন্য সঠিক পুষ্টি খুব বড় ভূমিকা পালন করে। দেশ এবং পুষ্টি খুব ঘনিষ্ঠভাবে জড়িত।
  • পুষ্টি সম্পর্কিত এই লড়াইয়ে সাধারণ মানুষের অংশগ্রহণও খুব গুরুত্বপূর্ণ। জনগণ এটিকে সফল করে তোলে
  • ৫ সেপ্টেম্বর আমরা শিক্ষকদিবস উদযাপন করব। যখনই আমরা আমাদের সাফল্য নিয়ে চিন্তা করি, আমরা প্রায়শই একজন শিক্ষককে স্মরণ করি