US Presidential Election Results 2020: বৈধ ভোটে আমিই জিতেছি, ডেমোক্র্যাটদের বিরুদ্ধে ভোট কারচুপির অভিযোগ ট্রাম্পের
ডোনাল্ড ট্রাম্প (Photo Credits: Getty Images)

ওয়াশিংটন, ৬ নভেম্বর: ‘বৈধ ভোট গণনা হলে নিশ্চিতভাবেই আমি জিতেছি।’ ইতিমধ্যেই ডেমোক্র্যাটদের বিরুদ্ধে ব্যাপকহারে ভোট কারচুপির অভিযোগ এনেছেন তিনি। এনিয়ে আইনি লড়াইয়েও গিয়েছেন ট্রাম্প, তবে লাভের লাভ কিছু হয়নি। মার্কিন প্রেসিডেন্টের ভোটযুদ্ধে জো বিডেন তাঁকে অনেকটাই পিছনে ফেলে দিয়েছেন। এক সাংবাদিক সম্মেলনে ট্রাম্প বলেন, “যদি বৈধ ভোট গণনা হয় তাহলে আমিই জিতেছি।” ডেমোক্র্যাটরা নির্বাচনটাই পুকুর চুরি করে নিয়েছে। আমি অনেক কঠিন সমস্যা সঙ্কুল রাজ্যে জিতে গিয়েছি। এই তালিকার কয়েকটি হল ইন্ডিয়ানা, ওহায়ো, লোওয়া, ফ্লোরিডা। বড় মিডিয়া, বড় টেক কোম্পানি, টাকার খেলা সত্ত্বেও আমাদের ঐতিহাসিক জয় হয়েছে অনেক রাজ্যে। এখানে কোথাও ডেমোক্র্যাটদের জনসমুদ্র নেই। রয়েছে রিপাবলিকানদের ঢেউ।

এদিন ডোনাল্ড ট্রাম্প (Donald Trump) প্রতিপক্ষের দিকে অভিযোগের আঙুল তুলে বলেন, 'ভোটারদের নিয়ে জালিয়াতি হয়েছে। ডোনাল্ড ট্রাম্পের পক্ষে যা ভোট পড়েছে, তা যাতে গোনা না হয়, তা ডেমোক্র্যাটরা নিশ্চিত করেছে।' অনেক জায়গাতেই রিপাবলিকান নির্বাচন পর্যবেক্ষকদের গণনাকেন্দ্রের ধারেকাছে ঘেঁষতে দেওয়া হয়নি। যে কারণে নির্বাচনী প্রক্রিয়ার বিরুদ্ধে তাঁর প্রচার দলটি বেশ কয়েকটি মামলা দায়ের করেছে। ভোট কারচুপির অভিযোগ তুলে পুনর্গণনারও আর্জি জানানো হয়েছে। এখনও চার রাজ্যে ভোটগণনা শেষ হয়নি। এই চার রাজ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হলেও পেনসিলভানিয়া, জর্জিয়া ও নর্থ ক্যারোলিনায়া তিনি এখনও এগিয়ে রয়েছেন। কয়েক লক্ষ পোস্টাল ভোট ও মেইল-ইন ভোটের গণনা চলছে। এটাই কারচুপির জায়গা। অর্থাত্‍‌ ধরে নেওয়া যায়, মার্কিন প্রেসিডেন্ট আশঙ্কা করছেন হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ে এগিয়ে থাকা এই রাজ্যগুলিতে তিনি পিছিয়ে পড়বেন। যার অর্থ, তাঁর হার সুনিশ্চিত। সম্ভবত, সেই কারণেই তিনি বারবার বৈধ ভোটের প্রসঙ্গ টানছেন। আরও পড়ুন-Hyderabad Traffic Constable: ব্যস্ত সময়ে অ্যাম্বুল্যান্সকে পথ করে দিতে ২ কিমি দৌড়লেন এই কনস্টেবল, দেখুন ভিডিও

ট্রাম্প আরও বলেন, ব্যালট গোনার সময় সর্বক্ষণ প্রতিটি কেন্দ্র থেকে লাইভ সম্প্রচার করা হয়েছে। কিন্তু, মেইল-ইন ভোটিং প্রক্রিয়ার সময় তা হয়নি। ট্রাম্পের মতে, এই মেইল-ইন ভোট প্রক্রিয়া আদতে 'দুর্নীতি'। গোটা ভোটপ্রক্রিয়াকে নষ্ট করে দিয়েছে।