New PCB Chairman: পাকিস্তান ক্রিকেটের নয়া চেয়ারম্যান পঞ্জাবের তত্ত্বাবধায়ক মুখ্যমন্ত্রী মোহসিন নাকভি
PCB Chairman Mohsin Naqvi (Photo Credit: @ibrahimhmurad/ X)

পিসিবিতে অবশেষে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে এবং একজন পূর্ণকালীন চেয়ারম্যান হিসেবে মোহসিন নাকভিকে (Mohsin Naqvi) তিন বছরের মেয়াদে নির্বাচিত করা হয়েছে। পাকিস্তান ক্রিকেট বিস্তারিত কিছু না জানিয়ে শুধু জানায়, ৩৭তম পিসিবি চেয়ারম্যান হিসেবে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন তিনি। গত মাসে আনুষ্ঠানিকভাবে অন্তর্বর্তীকালীন ব্যবস্থাপনা কমিটির প্রধান থাকা জাকা আশরাফ (Zaka Ashraf) পদত্যাগ করার পর নাকভির নিয়োগ ব্যাপকভাবে প্রত্যাশিত ছিল। সেই সময় পাকিস্তানের তত্ত্বাবধায়ক প্রধানমন্ত্রী আনোয়ার কক্কর (Anwar Kakar) পঞ্জাবের তত্ত্বাবধায়ক মুখ্যমন্ত্রী নকভিকে ক্রিকেট বোর্ডে নিয়োগ করেন। পদ পেয়ে নাকভি বলেন, 'সর্বসম্মতিক্রমে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ডের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় আমি গভীরভাবে সম্মানিত ও বিনীত বোধ করছি। আমার ওপর যে আস্থা ও বিশ্বাস রেখেছে তার জন্য আমি কৃতজ্ঞ। আমি দেশের ক্রিকেটের মান উন্নত করতে এবং পাকিস্তানে ক্রিকেট প্রশাসনে পেশাদারিত্ব আনতে সম্পূর্ণ প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।' Sachin Tendulkar on Lata Mangeshkar: দেশের কণ্ঠ দিদির মৃত্য়ুবার্ষিকীতে সচিনের পোস্টে লতায় পাতায় আবেগ আর শ্রদ্ধা

দেখুন পোস্ট

নকভির প্রথম বড় কাজ হবে আগামী ১৭ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হতে যাওয়া পাকিস্তান সুপার লিগের (Pakistan Super League) তত্ত্বাবধান করা। যদিও খসড়া, ভেন্যু এবং টিকিট বিক্রির সিদ্ধান্তসহ টুর্নামেন্টের বেশিরভাগ লজিস্টিকাল কাজ ইতিমধ্যে হয়ে গেছে, লিগটি তর্কসাপেক্ষে প্রতি বছর পাকিস্তান ক্রিকেটের জন্য সবচেয়ে আর্থিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ ইভেন্ট। এছাড়া নকভি পিসিবির শীর্ষস্থানীয় ভূমিকার পাশাপাশি পাঞ্জাবের তত্ত্বাবধায়ক মুখ্যমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন চালিয়ে যাবেন। গত সপ্তাহে আশরাফ পদত্যাগ করলে পিসিবির নির্বাচন কমিশনার খাওয়ার শাহ (Khawar Shah) সংক্ষিপ্ত সময়ের জন্য সভাপতির দায়িত্ব নেন। তত্ত্বাবধায়ক মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে নাকভির মেয়াদ ইতিমধ্যে তার সাংবিধানিক সীমা ছাড়িয়ে গিয়েছে। পাকিস্তানের আইন অনুযায়ী, তত্ত্বাবধায়ক সরকার মাত্র তিন মাস দায়িত্ব পালন করতে পারে। পাকিস্তানের নির্বাচন কয়েক মাস পিছিয়ে দেওয়া হলে নাকভিকে এক বছর আগে ২০২৩ সালের জানুয়ারিতে নিয়োগ করা হয়। ৮ ফেব্রুয়ারি পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচনের সময় পাকিস্তানের বৃহত্তম প্রদেশটির মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে তার মেয়াদ শেষ হবে।