Basant Panchami 2020:  ১৪ ফেব্রুয়ারি নয়, বাঙালির ভ্যালেন্টাইন্স ডে সরস্বতী পুজোই, কেন জানেন?
(Photo Credits: YouTube)

কলকাতা, ২৮ জানুয়ারি: খাতায় কলমে ১৪ ফেব্রুয়ারি ভ্যালেন্টাইন্স ডে। কিন্তু বাঙালির কাছে সরস্বতী পুজোই হল ভ্যালেন্টাইন্স ডে(Valentines Day)। শীতের আমেজের মধ্যেই সরস্বতী পুজো(Sarswati Puja)র প্রস্তুতি নিচ্ছে বাঙালি। জেন ওয়াইয়ের কাছে এই দিনটা একটু স্পেশাল। পায়জামা-পাঞ্জাবী, হলুদ পেড়ে শাড়িতে আজ একেবারে অন্য মেজাজে থাকেন তাঁরা। বাঙালির কাছে সরস্বতী পুজোর দিনটিই ভ্যালেন্টাইন্স ডে। এইদিনই প্রেমের জোয়ারে ভাসে জেন ওয়াই। ইকো-পার্ক থেকে এলিয়ট পার্ক, মোহরকুঞ্জ। সব জায়গায় প্রেমের ছড়াছড়ি এই দিনে।

এই দিনটি বাঙালিদের কাছে এক নস্টালজিয়া। খাওয়াদাওয়া এবং পড়াশুনা। কিংবা ঘুরতে যাওয়া। কোনও কিছুতেই আজ কোনও বাধা নেই। আজকের দিনটা একদম স্বাধীনভাবে এদিক ওদিকে ঘুরে বেরানোর দিন। কেউ পড়তে বসারও তাড়া দেয়না আজকের দিনে। পড়াশুনায় ভাল তো হতেই হবে। পাশাপাশি সারাক্ষণই একটা প্রতিযোগিতা চলতে থাকে। 'জেনারেশন আমি' ছবিটি যদি দেখে থাকেন, তাহলে আপনি আমার কথার সঙ্গে সংযোগ ঘটাতে পারবেন। ছেলের পরীক্ষা কিন্তু পরীক্ষার হলের বাইরে বসে হাত পা কাঁপছে ছেলের মায়ের। হল থেকে বেরোতেই প্রশ্নের উত্তর ছেলেকে জিজ্ঞেস করে একবার পরখ করে নেওয়া। তবে সরস্বতী পুজোর দিনটা যেন একেবারেই আলাদা, এই দিন বরং উল্টো হয়। পড়তে বসলে বকা দেয় মা-বাবা। তবে সরস্বতী পুজোর দিনটা কেন ভি-ডে হিসেবে মানায় বাঙালিরা? তার জন্যও রয়েছে ৪টি কারণ।

ভালবাসার মরশুম

বসন্ত কাল ভালবাসার মরশুম। না ঠান্ডা, না গরম। রোমান্টিক ওয়েদারে আপনি ফিল করবেনই Love is in the air।

শাড়ি-পাঞ্জাবির যুগলবন্দি

লাল পেড়ে হলুদ রংয়ের ট্র্যাডিশনাল শাড়ি এবং পায়জামা পাঞ্জাবি-তে ছেলেরা। এটাই যেন সরস্বতী পুজোর ড্রেসকোড।

পড়াশুনা থেকে ছুটি

এই দিন পড়াশুনা থেকেও ছুটি। পুজোর জন্য এদিনে পড়লেও বরং বকা খেতে হয় মা-বাবার কাছে। পড়াশুনা নয়। এই দিনটি শুধু প্রেমের দিন। কিংবা নিজের ক্রাসকে মনের কথা বলে দেওয়ার দিন।

খাওয়া-দাওয়া

এই দিনে খিচুড়ি তো মাস্ট। পাশাপাশি কেউ কেউ এই দিনে আবার ইলিশ মাছও খেয়ে থাকেন। এছাড়া ঠাকুর দেখতে বেরিয়ে ফুচকা, ঝালমুড়ি তো চলেই।