রাহুল গান্ধী-র পদত্যাগ, কোনও অনুরোধ না শুনে লোকসভা ভোটের ভরাডুবির দায় নিয়ে কংগ্রেস সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা সোনিয়া পুত্রের
কংগ্রেস সভাপতি হিসেবে ফেরার যাবতীয় অনুরোধ ফেরালেন রাহুল গান্ধী। (Photo Credits: PTI)

নয়া দিল্লি, ৩ জুলাই:  সরকারীভাবে কংগ্রেসে রাহুল গান্ধী (Rahul Gandhi) যুগের অবসান হল। কংগ্রেস সভাপতি পদ থেকে পদত্যাগ পত্র জমা দিলেন রাহুল। প্রায় দু বছর কংগ্রেস প্রধান হিসেবে কাজ করার পর লোকসভা নির্বাচনের (Lok Sabha Elections 2019)-j ভরাডুবি-র দায় মাথায় নিয়ে সরলেন রাজীব-সোনিয়া গান্ধীর পুত্র রাহুল। এবার কংগ্রেস প্রধান হিসেবে কাকে দেখা যায় সেটাই দেখার।

দলের নেতা-কর্মীদের হাজারো অনুরোধেও গলল না বরফ। কংগ্রেসের সভাপতি পদে তিনি ইতিমধ্যেই তিনি ইস্তফা দিয়েছেন আর ফিরতে চান না তিনি, সেটা সাফ জানিয়ে দিলেন রাহুল গান্ধী (Rahul Gandhi)। লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের ভরাডুবির পর সভাপতির পদ থেকে সরে দাঁড়ানো রাহুল সাফ জানিয়ে দিলেন, তিনি আগেই পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন, তিনি আর কংগ্রেস সভাপতির দৌড়ে নেই।

আমেথিতেও নিজের গড় ধরে রাখতে ব্যর্থ রাহুল জানালেন, '' দলের খুব তাড়াতাড়ি নতুন সভাপতি খুঁজে নেওয়া উচিত। সভাপতি হওয়ার প্রক্রিয়ায় নেই। পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছি, আমি আর কংগ্রেস সভাপতি নই।''আরও পড়ুন- রাজ্যের সীমান্ত সুরক্ষায় মুক্ত হস্তে অর্থ সাহায্য মোদি সরকারের

দেখুন রাহুলের পদত্যাগপত্র

রাহুল গান্ধীকে সভাপতির পদে রাখতে কংগ্রেসের শীর্ষ নেতা থেকে দলের কর্মীরা অনেক অনুরোধ করেন। ক দিন আগে অমরিন্দর সিং, অশোক গেহলটের মত অভিজ্ঞ নেতা সহ কংগ্রেসের মুখ্যমন্ত্রীকে রাহুলকে দলকে নেতৃত্বে জানানোর আবেদন জানিয়ে ব্যর্থ হয়েছিলেন। রাহুলের পদত্যাগ ঠেকাতে গতকাল দিল্লিতে কংগ্রেস ভবনের সামনের আত্মহত্যার চেষ্টাও হয়েছিল। ২০১৭ সালে রাহুল গান্ধীকে কংগ্রেস সভাপতি হিসেবে নির্বাচিত করা হয়।

রাহুলের নেতৃত্বে নরেন্দ্র মোদির গড় গুজরাটে ভাল লড়াই করে কংগ্রেস। লোকসভা নির্বাচনের আগে রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড়ে দারুণ সফলতা পায় হাত চিহ্নের দল। কিন্তু রাহুলের সে সব সাফল্য এক লমহায় মুছে যায় লোকসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের ভরাডুবি। রাহুল গান্ধীর নেতৃত্বে কেরালা ছাড়া দেশের সর্বত্র অত্যন্ত খারাপ ফল করে কংগ্রেস। দেশের ১৩টি রাজ্যে খাতায় খুলতে পারেনি এক সময়ে পুরো দেশ শাসন করা এই দল। রাহুল নিজেও আমেথিতে হারেন। হারের দায় নিয়ে সভাপতি পদ থেকে সরে দাঁড়ান রাহুল।

হারের হতাশায় রাজনীতি থেকে অনেক দূরে যান রাহুল। যে রাহুল গত বেশ কয়েক মাস মাটিতে নেমে মোদি সরকারের বিরুদ্ধে জোর প্রচার চালান, তিনিই হারের পর দু একটি টুইট ছাড়া আর কোনও কিছুই করছেন না। চলতি বছর মহারাষ্ট্রে, ঝাড়খণ্ডের মত রাজ্যে ভোট। তার আগে চলতি মাসেই কংগ্রেস নতুন সভাপতি খুঁজে নিতে পারে বলে শোনা যাচ্ছে। রাহুলের উত্তরসূরি হিসেবে এগিয়ে মহারাষ্ট্রে কংগ্রেসের অভিজ্ঞ নেতা সুশাীল কুমার শিন্ডে। রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট, পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিং-য়ের নামও নতুন কংগ্রেস সভাপতির দৌড়ে আছে।