কেন্দ্রের বঞ্চনার অভিযোগ ওড়াতে রাজ্যের সীমান্ত সুরক্ষায় মুক্ত হস্তে অর্থ সাহায্য নরেন্দ্র মোদি সরকারের
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও নরেন্দ্র মোদি(File Photo)

কলকাতা, ৩ জুলাই, ২০১৯: গতকালই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক রাজ্য়ের মাদ্রাসাগুলি (Madrasa) নিয়ে উদ্বেগজনক রিপোর্ট দিয়েছে। তারপরেই বাংলার সীমান্ত সুরক্ষায় (Border Security) ঢালাও আর্থিক সাহায্যের কথা ঘোষণা করল কেন্দ্রীয় সরকার।  মোদি সরকার রাজ্যকে এই সমস্যা সমাধানে ৩১৬ কোটি টাকা আর্থিক সাহায্য অনুমোদন করেছে। সীমান্ত নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে সমস্ত রকম সহযোগিতার আশ্বাস দেওয়া হয়েছে মমতা ব্যানার্জির তরফে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সংসদে রিপোর্ট পেশ করে বলেন, মুর্শিদাবাদ ও বর্ধমানের মাদ্রাসাগুলিকে ব্যবহার করে জঙ্গি প্রশিক্ষণ চলছে বাংলায়। জেএমবি জঙ্গিরা যুবক-যুবতীদের মগজধোলাইয়ের কাজে ব্যবহার করছে বাংলার মাদ্রাসাগুলিকে। রাজ্যে একাধিক জঙ্গিশিবির চলছে বলেও তাঁর অভিযোগ। তাই সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশ রুখতে আরও কঠোর হচ্ছে কেন্দ্র। আরও পড়ুন, কাটমানি ইস্যুতে উত্তাল শিলিগুড়ি, তৃণমূল কাউন্সিলর রঞ্জন শীল শর্মার বিরুদ্ধে টাকা নেওয়ার অভিযোগ

সেই কারণে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত সুরক্ষায় জোর দিল কেন্দ্রের এনডিএ সরকার। একইসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গকে ৩১৬ কোটি টাকা প্রদানের কথাও জানাল। গোটা দেশের মধ্যে সবথেকে বেশি অর্থ পাবে মমতার বাংলা। লোকসভায় একটি প্রশ্নের লিখিত উত্তরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এ কথা জানান। তিনি বলেন, ইন্দো-বাংলাদেশ সীমান্তে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে। সীমান্ত এলাকায় বাড়ানো হচ্ছে পোস্ট এবং নাকা চেকিং পয়েন্টের সংখ্যা। উচ্চপ্রযুক্তি প্রয়োগে যন্ত্রপাতি লাগানো হচ্ছে, হচ্ছে নাইট ভিশনের ব্যবস্থাও। ইতিমধ্যে এলাকা চিহ্নিতকরণের কাজও শুরু হয়ে গিয়েছে।