চিন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডরকে অবৈধ বলে চিনকে পাল্টা জবাব ভারতের
ছবিটি প্রতীকী (Photo Credits: PTI)

নতুন দিল্লি, ২৮ সেপ্টেম্বর: রাষ্ট্রসংঘের সাধারণ সভার অধিবেশনে জম্মু ও কাশ্মীরের বিষয়ে রেফারেন্স দেওয়ার জন্য শনিবার চিনের (China) কড়া সমালোচনা করল ভারত (India)। পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরে (Pakistan-occupied Kashmir) চিন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডরকে অবৈধ বলে অভিহিত করেছে নতুন দিল্লি। রাষ্ট্রসংঘে ভাষণ দেওয়ার সময় কাশ্মীর ইস্যু উত্থাপন করেন চিনের বিদেশ মন্ত্রী ওয়াং ইয়ি (Wang Yi) বলেন, কাশ্মীর সমস্যাটি রাষ্ট্রসংঘের সনদ, সুরক্ষা কাউন্সিলের প্রস্তাবসমূহ এবং দ্বিপাক্ষিক চুক্তি অনুসারে শান্তিপূর্ণভাবে এবং সুষ্ঠুভাবে সমাধান করা উচিত।" চিনের বিদেশমন্ত্রী বলেন, "একতরফাভাবে স্থিতাবস্থায় পরিবর্তন আনতে পারে এমন কোন পদক্ষেপ নেওয়া উচিত নয়।"

শনিবার চিনের বিদেশমন্ত্রী সেই বক্তব্যের কড়া জবাব দিয়েছে ভারত। বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রবীশ কুমার (Raveesh Kumar) জম্মু ও কাশ্মীরের বিষয়ে ভারতের অবস্থান ব্যক্ত করেছেন। তিনি বলেন, জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখ ভারতের অবিচ্ছেদ্য অঙ্গ এবং এই অঞ্চল সম্পর্কিত সাম্প্রতিক ঘটনাবলি পুরোপুরি অভ্যন্তরীণ বিষয়।" তিনি আরও বলেন, "আমরা আশা করি যে অন্য দেশগুলি ভারতের সার্বভৌমত্ব এবং আঞ্চলিক অখণ্ডতাকে সম্মান করবে এবং পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরে অবৈধ চিন-পাকিস্তান অর্থনৈতিক করিডরের মাধ্যমে স্থিতাবস্থা পরিবর্তনের প্রচেষ্টা থেকে বিরত থাকবে।" রবিশ কুমার বলেন, "ভারত প্রত্যাশা করে যে অন্য দেশগুলিও ভারতের সার্বভৌমত্ব এবং আঞ্চলিক অখণ্ডতাকে সম্মান করবে।" আরও পড়ুন:  ‘শান্তির পুজারী ভারত বিশ্বকে যুদ্ধ নয় গৌতম বুদ্ধ দিয়েছে’, রাষ্ট্রসংঘের সাধারণ সভায় সন্ত্রাসকে মেরে ছক্কা হাঁকালেন নরেন্দ্র মোদি

৫ আগস্ট কেন্দ্র জম্মু ও কাশ্মীরের ৩৭০ অনুচ্ছেদের অধীনে বিশেষ মর্যাদাকে বাতিল করে এবং রাজ্যটিকে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বিভক্ত করার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করে। তবে উপত্যকায় এখন মোবাইল-ইন্টারনেট সহ আংশিক বিধিনিষেধ এখনও জারি রয়েছে। এরপর চিন লাদাখকে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসাবে ঘোষণার বিষয়ে আপত্তি জানিয়েছিল এবং এই পদক্ষেপটি তাদের আঞ্চলিক সার্বভৌমত্বের বিরুদ্ধে ছিল বলে জানায়। পাশাপাশি ভারতকে সীমান্ত সমস্যা জটিল না করার জন্য সাবধানতা অবলম্বন করতে বলেছিল।