Ayodhya Verdict: আজ অযোধ্যা মামলার চূড়ান্ত রায় ঘোষণা, কড়া নিরাপত্তা দিল্লি-উত্তরপ্রদেশ জুড়ে
অযোধ্যা মামলার চূড়ান্ত রায় দেবে সুপ্রিম কোর্ট (Photo Credits: IANS/ PTI)

নতুন দিল্লি, ৯ নভেম্বর: অপেক্ষার অবসান শেষে আজ শনিবার অযোধ্যা মামলার (Ayodhya Verdict) চূড়ান্ত রায় ঘোষণা। বহু প্রতিক্ষিত অযোধ্যা মামলায় রায় ঘোষণা করতে চলেছে সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court)। গতকাল ANI সূত্রে এই খবর জানানো হয়েছে। কোনোরকম অশান্তি যাতে সৃষ্টি না হয় তার জন্য সারা দেশ সহ দিল্লি-উত্তরপ্রদেশে (Delhi- Uttar Pradesh) রয়েছে আঁটোসাঁটো নিরাপত্তা (Security)। সকাল সাড়ে ১০টায় প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের (Ranjan Gogoi) নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতির সাংবিধানিক বেঞ্চ এই মামলার রায় দেবে।

গত ১৬ অক্টোবর সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন ৫ সদস্যের সাংবিধানিক বেঞ্চে অযোধ্যা জমি বিতর্কের শুনানি শেষ হয়। তবে সে সময় কোনও রায় ঘোষণা করেনি সর্বোচ্চ আদালত। এদিকে, আগামী ১৭ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈকে পদ থেকে অবসর গ্রহণ করতে হবে। তার অবসরের আগে এই মামলার রায়দান হতে পারে বলে আগেই শোনা যাচ্ছিল। আরও পড়ুন, কেন্দ্রের নিদান, গান্ধী পরিবারের বিশেষ সুরক্ষা বলয় সরিয়ে আসছে জেড প্লাস ক্যাটেগরির নিরাপত্তা

সেই মতো প্রশাসনিক মহলে সমস্ত ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনার জন্য উত্তরপ্রদেশের মুখ্যসচিব রাজেন্দ্র কুমার তিওয়ারি (Rajendra Kumar Tiwari) এবং পুলিশ প্রধান ওম প্রকাশ সিংয়ের (Om Prakash Singh) সঙ্গে বৈঠক করেন প্রধান বিচারপতি গগৈ। এই জল্পনার মধ্যেই এদিন রাতে অযোধ্যা মামলায় রায় ঘোষণার দিনক্ষণ ঘোষণা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

গত ১৯৯২-এর স্মৃতি এখনও টাটকা। রায় ঘোষণার আগে অশান্তির ভয়ে গৃহবন্দি হয়েছে আশেপাশে এলাকার লোকজন। কেউ কেউ বাড়িতে চাল- ডাল মজুত করে রেখেছে। নজর রাখা হচ্ছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। কোনোরকম সংবেদনশীল পোস্ট দেওয়া নিয়ে সতর্কবার্তা দিয়েছে অযোধ্যার জেলাশাসক।

এদিকে, অযোধ্যার আশপাশে অনেক গ্রামে পুলিশ ড্রোনের (Drone) মাধ্যমে নজরদারি চালাচ্ছে। ৩০টি বম্ব স্কোয়াড (Bomb Squad) চলে গিয়েছে বৃহস্পতিবার রাতে। অযোধ্যার অধিকাংশ এলাকায় ১৪৪ ধারা (Section 144) জারি রয়েছে। ডিসেম্বরের শেষ পর্যন্ত এই ধারা জারি থাকবে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সেখানে চার হাজার আধা-সামরিক বাহিনীর জওয়ান পাঠিয়েছে। সেই সঙ্গে ষোলো হাজার পুলিশকর্মী পাঠানো হয়েছে।

ভারতীয় রেল (Indian Railway) তাদের কর্মীদের জন্য ৭ পাতার নির্দেশিকা জারি করেছে, বাতিল হয়ে গিয়েছে সব ছুটি। ৭৮টি বড় স্টেশনে বাড়ানো হচ্ছে নিরাপত্তা। রেলের ব্রিজ, টানেল, প্ল্যাটফর্মে বাড়তি নজর দেওয়া হচ্ছে। তবে, সেই রায় আসার আগে সরকারের সামনে বড় চ্যালেঞ্জ হল, অযোধ্যা-সহ দেশজুড়ে শান্তি বজায় রাখা৷ সব রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলিতে যাতে শান্তি বজায় থাকে, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক সেই মর্মে সর্বত্র চিঠি পাঠিয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (PM Narendra Modi) তাঁর মন্ত্রিসভায় অত্যন্ত সংযত হয়ে প্রতিক্রিয়া দেওয়ার কথা জানিয়ে দিয়েছেন। বিজেপি (BJP) বা সঙ্ঘ পরিবারের (RSS) তরফ থেকে যেন কোনো উত্তেজক মন্তব্য না করা হয় তার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এমনকি রাজ্য মুখপাত্রদেরও এবিষয়ে কোনোরকম উত্তেজক মন্তব্য না করা হয় তা জানানো হয়েছে।