Russia Luna-25 Moon Mission: ৫০ বছর পর চাঁদে চলল রাশিয়া, ভারতের চন্দ্রযানের আগেই অবতরণ করবে পুতিনের দেশের লুনার!  (দেখুন ভিডিয়ো)
Russia's Luna-25 mission launches to Moon. (Photo Credits: Twitter)

মস্কো, ১১ অগাস্ট: ৫০ বছর পর চাঁদের উদ্দেশ্য পাড়ি দিল রাশিয়ার চন্দ্রযান 'লুনা ২৫'। শুক্রবার মস্কো থেকে কিছুটা দূরের এক জায়গা থেকে লুনা ২৫-র সফল উৎক্ষেপণ হল। যা নিয়ে রাশিয়ার মহাকাশ গবেষণা সংস্থাকে শুভেচ্ছা জানাল ইসরো। উৎক্ষেপণের দিন দশ-বারো মধ্যেই চাঁদে অবতরণ করার কথা পুতিনের দেশের চন্দ্রযানের। ইউক্রেন যুদ্ধের মাঝে কোণঠাসা রাশিয়া চাঁদের উদ্দেশ্যে পাড়ি দিয়ে দুনিয়ার কাছে বার্তা রাখল।

চাঁদের দক্ষিণ মেরুতে জল, বরফের সন্ধান সহ নানা গবেষণার কাজে রবোটিক ল্যান্ডার পাঠালো পুতিনের দেশ। সব ঠিকঠাক থাকলে ভারতের চন্দ্রযানের দিন দুয়েক আগেই চাঁদে অবতরণ করবে রাশিয়ার লুনা। আগামী ১৬ অগাস্ট চাঁদের কক্ষপথে প্রবেশ করছে রাশিয়ার চন্দ্রযান 'লুনা ২৫'। তারপর ২১ অগাস্ট সেটি চাঁদে ল্যান্ড করার কথা। তবে এমনও মনে করা হচ্ছে ভারতের চন্দ্রযান ৩-এর সঙ্গে ২৩ অগাস্ট রাশিয়ার লুনা ২৫-এ চাঁদে অবতরণ করবে। তবে সবই নির্ভর করছে লুনা ২৫-র চাঁদের কক্ষপথে পৌঁছনোর পর তার টেকনিক্যাল বিষয়গুলির ওপর। আরও পড়ুন-হাওয়াইতে দাবানল, মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৫৩

দেখুন ভিডিয়ো

চাঁদের পৃষ্ঠে যাওয়ার আগে তিন-সাতদিন ধরে ১০০ কিলোমিটার (৬২ মাইল) পথ আর্বতন করবে পুতিনের দেশের চন্দ্রযান। চাঁদের কক্ষপথে প্রবেশের সাড়ে পাঁচদিনের মধ্যে সেখানে পৌঁছে যাওয়ার ক্ষমতা রাখে 'লুনা ২৫'। যেখানে ভারতের 'চন্দ্রযান ৩' গত ১৪ জুলাই চাঁদের উদ্দেশ্য পাড়ি দেওয়ার পর গত ৫ অগস্ট ইসরোর মহাকাশযান প্রবেশ করে চাঁদের কক্ষপথে।

দেখুন লুনা ২৫-এর উৎক্ষেপণর ভিডিয়ো

যেখানে ভারতের চন্দ্রযান আগামী ২৩ অগাস্ট চাঁদে অবতরণ রাখতে পারে। তার দিন সাতেকের মধ্যে চাঁদে নামছে রাশিয়ার 'লুনা'। পুতিনের দেশের সংবাদমাধ্যমে খবর, ইউক্রেন আক্রমণের বছরখানেক আগেই লুনা ২৫ চাঁদে যেতে তৈরি করে ফেলেছিল রাশিয়া। কিন্তু যুদ্ধের কারণে মহাকাশ লড়াই থেকে সরে আসেন পুতিন। কিন্তু ইউক্রেন যুদ্ধে চাপে থাকার পর রাশিয়ার প্রত্যাবর্তনের গর্জন গোটা বিশ্বে পৌঁছে দিতে চাঁদযাত্রাকেই বেছে নিলেন প্রেসিডেন্ট পুতিন।

১৯৭৬ সালে শেষবার চাঁদে গিয়েছিল রাশিয়ার (তখন সোভিয়েত ইউনিয়ন) চন্দ্রযান। চাঁদ থেকে আর তেমন কিছু পাওয়ার আশা নেই ভেবে সেখানে যাওয়ার যাবতীয় মিশন বাতিল করেছিল সোভিয়েত রাশিয়া সরকার। কিন্তু চাঁদ নিয়ে আবার উতহাসিত হয়েছে পুতিনের দেশ।