North Korea Fires Ballistic Missile: সমুদ্রে আবারও ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ উত্তর কোরিয়ার (দেখুন ভিডিও)
North Korea Fires Ballistic Missile (Photo Credit: Sputnik/ X)

রবিবার উত্তর কোরিয়া সমুদ্রের দিকে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে। বছরের প্রথমে এবং গত এক মাসের এটি তাদের প্রথম ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ। দক্ষিণ কোরিয়ার জয়েন্ট চিফ অব স্টাফ জানিয়েছেন, রবিবার ক্ষেপণাস্ত্রটি উৎক্ষেপণ করা হয়েছে, তবে অস্ত্রটি কতদূর উড়েছে সে বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানাননি। জাপানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, তারা উত্তর কোরিয়ার সম্ভাব্য ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণের বিষয়টি শনাক্ত করেছে। গত ১৮ ডিসেম্বর উত্তর কোরিয়ার সবচেয়ে উন্নত অস্ত্র হুয়াসং-১৮ (Hwasong-18) শক্তিশালী জ্বালানি চালিত আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষা চালানোর পর এটি উত্তর কোরিয়ার প্রথম ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ। এই ক্ষেপণাস্ত্রটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মূল ভূখণ্ডে আঘাত হানার জন্য ডিজাইন করা হয়েছে। দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে উত্তেজনাপূর্ণ সমুদ্র সীমান্তের কাছে উত্তর কোরিয়া কামানের গোলা নিক্ষেপ করার কয়েকদিন পর রবিবার এই ক্ষেপণাস্ত্র উৎক্ষেপণ করা হয়। Taiwan: বাড়ল চিনের চাপ! তাইওয়ানের নতুন রাষ্ট্রপতি হলেন লাই চিং তে

এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি ভিডিও বেশ ভাইরাল হয়েছে যেখানে দেখা যাচ্ছে একটি ক্ষেপণাস্ত্র একটি জাহাজের ওপর পড়ে বিস্ফোরণ ঘটিয়ে চারিদিক কাঁপিয়ে দিয়েছে। বিদেশী কিছু সংবাদপত্র দাবি করেছে এই ভিডিওটি একটি ক্ষেপণাস্ত্রের যেটি উত্তর কোরিয়া নিক্ষেপ করেছে এবং আমেরিকার তেলের ট্যাঙ্ককে ধ্বংস করেছে।

দেখুন ভিডিও

সাম্প্রতিক সময়ে উত্তর কোরিয়াও তার প্রতিদ্বন্দ্বীদের বিরুদ্ধে 'যুদ্ধংদেহী' বাগাড়ম্বর বাড়িয়ে তুলেছে। এ সপ্তাহের শুরুতে নেতা কিম জং উন (Kim Jong Un) দক্ষিণ কোরিয়াকে 'আমাদের প্রধান শত্রু' আখ্যায়িত করেন এবং উস্কানি দিলে তা ধ্বংস করে দেয়ার হুমকি দেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কিম তার প্রতিদ্বন্দ্বীদের সঙ্গে অচলাবস্থার ঝুঁকি বাড়াতে এবং এপ্রিলে দক্ষিণ কোরিয়ার পার্লামেন্ট নির্বাচন এবং নভেম্বরে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ফলাফলকে প্রভাবিত করতে আরও ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করে শত্রুতা আরও বাড়িয়ে তুলবেন। ডিসেম্বরের শেষের দিকে ক্ষমতাসীন দলের এক গুরুত্বপূর্ণ বৈঠকে কিম তার পারমাণবিক অস্ত্রাগার সম্প্রসারণ এবং মার্কিন নেতৃত্বাধীন সংঘাতময় পদক্ষেপ মোকাবেলায় অতিরিক্ত গোয়েন্দা উপগ্রহ উৎক্ষেপণের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।