Israel-Palestine Conflict: ইজরায়েলের উপর হামাস গোষ্ঠীর অতর্কিত হামলা, পাশে দাঁড়াল বিশ্বের শক্তিধর দেশগুলি (দেখুন টুইট)
Al Watan Tower Demolished (Photo Credit: BNO News/ X)

ইজরায়েলের উপর হামাস গোষ্ঠীর অতর্কিত হামলা এবং এর প্রতিশোধ হিসেবে গাজা ভূখণ্ডে ইজরায়েলের পাল্টা হামলার পর, গোটা বিশ্ব কার্যত দুটি শিবিরে বিভক্ত হয়ে গিয়েছে। একটি শিবির এই ‘সন্ত্রাসবাদী’ হামলার কড়া নিন্দা করেছে। অন্য পক্ষের অভিযোগ, প্যালেস্টাইনি এলাকায় গত কয়েক মাসে ইজরায়েল যে দমনমূলক পদক্ষেপগুলি করেছে, তাতে এই হামলা প্রত্যাশিতই ছিল। শনিবার দক্ষিণ ইজরায়েলের বিভিন্ন শহরে হামাসের রকেট হামলার পরপরই, ইজরায়েলের পাশে দাঁড়ানোর বার্তা দিয়েছেন বিশ্বের তাবড় তাবড় নেতারা। এবার এই অবস্থায় আমেরিকার হোয়াইট হাউস থেকে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ, জার্মানির চ্যান্সেলর স্কোলজ, ইতালির প্রধানমন্ত্রী মেলোনি, যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী সুনাক এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বাইডেনের তরফ থেকে একটি যৌথ বিবৃতি পেশ করা হয়। সেখানে লেখা হয়-

আজ, আমরা — ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রোঁ, জার্মানির চ্যান্সেলর স্কোলজ, ইতালির প্রধানমন্ত্রী মেলোনি, যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী সুনাক এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বিডেন — ইসরায়েল রাষ্ট্রের প্রতি আমাদের অটল ও ঐক্যবদ্ধ সমর্থন প্রকাশ করছি এবং হামাস এবং এর ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসবাদের দ্ব্যর্থহীন নিন্দা করছি। আমরা স্পষ্ট করে দিচ্ছি যে হামাসের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের কোনো যৌক্তিকতা নেই, কোনো বৈধতা নেই এবং এর সর্বজনীনভাবে নিন্দা করা উচিত। সন্ত্রাসবাদের কোনো যুক্তি নেই। সাম্প্রতিক দিনগুলিতে, বিশ্ব ভয়ঙ্করভাবে হামাসের সন্ত্রাসবাদীদের ধ্বংসলীলা দেখেছে কারণ হামাস সন্ত্রাসবাদীরা ইজরায়েলে ঢুকে গণহত্যা করেছে, একটি সংগীত উত্সবে অংশ নেওয়া ২০০ টিরও বেশি যুবককে হত্যা করেছে এবং প্রচুর ইজরায়েলের বৃদ্ধ মহিলা, শিশু সহ পরিবারকে অপহরণ করেছে, যারা এখন হামাসের হাতে পণবন্দী হিসাবে রয়েছে। দেখুন সেই টুইট