Ram Mandir Photos: নবনির্মিত রাম মন্দিরের স্থাপত্য, নকশা ও শিল্প সম্পর্কে বিশেষ কিছু তথ্য রইল
Picture From Shri Ram Janmabhoomi Mandir Site (Photo Credits: ShriRamTeerth/X)

 নয়াদিল্লি:  ২২ জানুয়ারী অযোধ্যার রাম মন্দিরে (Ram Temple) রামলালার প্রাণপ্রতিষ্ঠা (Pran Pratishtha) হবে। রাম মন্দিরটি তার নকশা (Design) ও কাঠামোর উপর ভিত্তি করে ভারতের বৃহত্তম এবং বিশ্বের তৃতীয় বৃহত্তম মন্দির হতে চলেছে৷ এদিন রামলালার প্রাণপ্রতিষ্ঠার সঙ্গে অযোধ্যারও পুনর্জন্ম ঘটতে চলেছে বলে দাবি করছেন ভক্তরা। অযোধ্যা হিন্দুদের জন্য একটি পবিত্র তীর্থস্থান। কারণ রাম চন্দ্র অন্যতম জনপ্রিয় দেবতা। তাই তাঁর জন্মস্থানে অবস্থিত মন্দিরটিও বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ।

নবনির্মিত রাম মন্দিরটি ৩৮০ ফুট লম্বা, চওড়ায় ২৫০ ফুট এবং উচ্চতায় ১৬১ ফুট। মন্দিরে মোট ৩৯২টি পিলার ও ৪৪টি গেট রয়েছে। তিনতলা মন্দিরটির প্রতিটি তলার উচ্চতা ২০ ফুট করে। আরও পড়ুন: Ram Mandir Beautiful Night View: মায়াবী আলোয় উদ্ভাসিত অযোধ্যার রামমন্দির, দেখুন অত্যাশ্চর্য রাতের দৃশ্য (রইল ভিডিও)

অযোধ্যা রাম মন্দিরটির নকশা করেছে ডিজাইনার চন্দ্রকান্ত সোমপুরা। ১৯৮৯ সালে অর্থাৎ, ৩৪ বছর আগে রামমন্দিরের নকশা তৈরি করেছিলেন চন্দ্রকান্ত। ২০২০ সালে প্রধানমন্ত্রী মোদির হাতে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন। তারপরই জোর কদমে শুরু হয় মন্দির তৈরির কাজ। সামান্য অদলবদল করে চন্দ্রকান্ত সোমপুরা-এর নকশা ধরেই অযোধ্যার রামমন্দির নির্মাণ হয়েছে। চন্দ্রকান্তের নকশার উপর ভিত্তি করেই, নির্মাণশিল্পীরা দিনরাত পাথর খোদাই করে মন্দিরটি তৈরি করেছেন। উল্লেখ্য, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ১৩১টি মন্দিরের নকশা তৈরি করেছেন চন্দ্রকান্ত।

আগামী অন্তত ১০০০ বছরে এই মন্দিরের কোনও ক্ষতি হবে না বলে জানা গিয়েছে। যে কোনও প্রাকৃতিক বিপর্যয়ও আগামী ১০০০ বছর সামলে নিতে পারবে নবনির্মিত রাম মন্দিরটি।

দেখুন 

 

১৬ জানুয়ারি মকর সংক্রান্তি থেকেই মন্দির উদ্বোধনের আচার-অনুষ্ঠান শুরু হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী মন্দির উদ্বোধন করবেন। তারকা সহ বিরোধী শিবিরের রাজনীতিবিদ ও শিল্পপতিদের আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। ২২ জানুয়ারি কেন্দ্রীয় সরকারের সমস্ত অফিস ২:৩০ টা পর্যন্ত বন্ধ রাখার নির্দেশ দিয়েছে। অনেক রাজ্যে এদিন স্কুল ও মদের দোকান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।