খাবার দিতে এসে দুমাসের পোষ্যকে চুরি করেছে জোম্যাটোর ডেলিভারি বয়, আদালতে গেলেন গৃহবধূ
প্রতীকী ছবি(Photo Credit: Zomato Logo)

মু্ম্বই, ১৭ অক্টোবর: এবার এক গৃহবধূর আবেদনের ভিত্তিতে কাঠগড়ায় উঠতে হল খাদ্য সরবরাহকারী সংস্থা জোম্যাটোকে (Zomato)। অভিযোগকারিণীর নাম বন্দনা শাহ (Vandana Shah)। অভিযোগ, তাঁর মাসদুয়েকের পোষ্য সারমেয়কে খাবার সরবরাহ করতে এসে চুরি করে নিয়ে গিয়েছে জোম্যাটোর ডেলিভারি বয় (food delivery executive)। বোম্বে হাইকোর্টে এনিয়ে একটি মামলাও রুজু করেছেন ওই মহিলা। তাঁর দাবি, খাবার ডেলিভারি বয়ের সচিত্র পরিচয় পত্র আধার কার্ডের প্রতিলিপি গ্রাহকের কাছে থাকা জরুরি যাতে তাকে সহজেই চিহ্নিত করা সম্ভব হয়। খাবার দিতে আসার সময় গ্রাহকের যাবতীয় তথ্য ডেলিভারি বয়ের কাছে থাকে। অন্যদিকে ডেলিভারি বয়ের নাম ছাড়া আর কোনও তথ্যই গ্রাহক জানেন না।

জানা গিয়েছে, বন্দনা শাহর পোষ্য দত্তু সম্প্রতি নিখোঁজ হয়ে যায়। এদিকে প্রিয় পোষ্যকে খুঁজে না পেয়ে চারিদিকে অনুসন্ধান শুরু করেন তিনি। তখনই জানতে পারেন যে খাবার দিতে আসা জোম্যাটোর ডেলিভারি বয় তাঁর দত্তুকে নিয়ে গিয়েছে। জানতে পেরেই প্রচণ্ড রেগে যান ওই মহিলা, সঙ্গে সঙ্গে অভিযুক্ত ডেলিভারি বয়ের ফোন নম্বরে কল করার চেষ্টা করেন। ততক্ষণে মোবাইলটি সুইচ অফ করে দিয়েছে ওই ডেলিভারি বয়। এরপর সাহায্যের জন্য জোম্যাটোর সঙ্গেই যোগাযোগ করেন তিনি। তবে লাভ কিছু হয়নি। জোম্যাটো সাহায্য করা তো দূরে থাক, সাফ জানিয়ে দেয় অভিযুক্ত নাকি তাদের সংস্থার কর্মীই নয়। আরও পড়ুন-দুই হাতে রিভলবার ও বন্দুক নিয়ে উদ্দাম নাচছেন ব্যক্তি, তদন্তে নামল হরিদ্বারের পুলিশ (দেখুন ভিডিও)

এদিকে এহেন জবাবের পর জোম্যাটোর উপরে বেজায় চটে যান বন্দনা শাহ। তিনি এই মর্মে বম্ব হাইকোর্টে মামলা দায়ের করেন। আবেদনে সাফ জানানো হয় ছলনার আশ্রয় নিয়ে তাঁর সঙ্গে চরম অন্যায় করা হয়েছে, যা ক্ষমরা অযোগ্য। জোম্যাটো যেন খাবার সরবরাহের জন্য যে কর্মীকে এবার গ্রাহকের কাছে পাঠাবে, তাঁর সম্পর্কে বিশদ বিবরণ আগেভাগেই গ্রাহককে পাঠিয়ে দিতে হবে। আদালতে এই দাবি জানান শাহ। একই সঙ্গে সরাসরি জোম্যাটোর সঙ্গে গ্রাহকের যোগাযোগের একটি চালু মাধ্যমও থাকতে হবে। অ্যাপ বা ওয়েবসাইটে যা সম্ভব নয়। এদিকে টানা ৫৩ ঘণ্টা খোঁজখবর নেওয়ার পর অবশেষে দত্তুকে ঘরে ফেরানো সম্ভব হয়েছে। অভিযুক্ত জোম্যাটো ডেলিভারি বয়কে চিহ্নিত কার গিয়েছে সে মুলসি। দত্তুকে অপহরণ করা হয়েছিল শাহর বাড়ি থেকে আর সে উদ্ধার হয়েছে প্রায় ৫০-৬০ কিলোমিটার দূরের একটি জায়গা থেকে।