লোকসভা নির্বাচনের সঙ্গে দেশের চারটি রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।এক নজরে দেখুন কোথায় কবে ভোট-- ওডিশা- ১৩ , ২০ ,২৫ মে এবং ১ জুন (চার দফায়)।। অন্ধ্র প্রদেশ- ১৩ মে।। সিকিম- ১৯ এপ্রিল।। অরুণাচল প্রদেশ- ১৩ মে।।

 

লোকসভা নির্বাচনের সঙ্গে দেশের চারটি রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।এক নজরে দেখুন কোথায় কবে ভোট-- ওডিশা- ১৩  ও ২০ মে (দু দফায়) অন্ধ্র প্রদেশ- ১৩ মে সিকিম- ১৯ এপ্রিল অরুণাচল প্রদেশ- ১৩ মে।

কলকাতার দুটি লোকসভা কেন্দ্র, দমদম, উত্তর ২৪ পরগণা ও দক্ষিণ ২৪ পরগণায় ভোটগ্রহণ ১ জুন। ১ জুন, সপ্তম দফায় ভোট যেখানে - কলকাতা উত্তর, কলকাতা দক্ষিণ, দমদম, বারাসাত, বসিরহাট, ডায়মন্ড হারবার, মথুরাপুর, যাদবপুর, জয়নগর।পড়ুন বিস্তারিত

প্রথম দফা:  ১৯ এপ্রিল (২১টি রাজ্যে)।। দ্বিতীয় দফা: ২৬ এপ্রিল।। তৃতীয় দফা: ৭ মে।। চতুর্থ দফা: ১৩ মে।। পঞ্চম দফা: ২০ মে।। ষষ্ঠ দফা:  ২৫ মে।। সপ্তম দফা: ১ জুন।। ভোট গণনা- ৪ জুন

বাংলায় সাত দফায় হবে ভোট। ১৯ এপ্রিল থেকে শুরু হবে ভোট। এরপর প্রতিটি দফাতেই বাংলায় ভোট হবে। উত্তরপ্রদেশ ও বিহারেও বাংলার মত সাত দফায় ভোটগ্রহণ হবে।দেশের মোট ২২টি রাজ্যে এক দফাতেই ভোটগ্রহণ হবে। মহারাষ্ট্র ও জম্মু-কাশ্মীর ভোটগ্রহণ ৫ দফায়। ওডিশা, মধ্যপ্রদেশ ও ঝাড়খণ্ড চারটি দফায় ভোটগ্রহণ হবে। অসম ও ছত্তিশগড়ে তিন দফায় ভোট। কর্ণাটক, রাজস্থান, ত্রিপুরা ও মণিপুরে দু দফায় ভোটগ্রহণ হবে।  

দেশে সাত দফায় হবে লোকসভা নির্বাচন। প্রথম দফা হবে ১৯ এপ্রিল। ভোট গণনা হবে ৪ জুন। লোকসভার পাশাপাশি দেশে পাঁচটি রাজ্যে হবে বিধানসভা নির্বাচন। এ ছাড়া কিছু আসনে হবে বিভিন্ন রাজ্যের বিধানসভা উপনির্বাচন।

বাংলার দুটি বিধানসভা উপনির্বাচনের দিন ঘোষিত হল। তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যোগদানের পর তাপস রায়ের ছেড়ে যাওয়া বরানগর ও মুর্শিদাবাদের ভগবানগোলায় বিধানসভা উপনির্বাচন হবে লোকসভা ভোটের তৃতীয় ও সপ্তম দফায়। ভগবানগোলায় ভোটগ্রহণ ৭ মে। বরানগরে পয়লা জুন।


 

এবার লোকসভা নির্বাচনে ৮৫ লক্ষের বেশী প্রথমবার ভোট দিতে চলা মহিলা ভোটার থাকছেন। এবার ভারতের সাধারণ নির্বাচনে ১ কোটি ৮২ লক্ষাধিক নতুন ভোটার থাকছেন। এবার মোট নথিভুক্ত ভোটার ৯৬ কোটি ৬০ লক্ষ ভোটার।

 

এবার লোকসভা নির্বাচনে ৮৫ লক্ষের বেশী প্রথমবার ভোট দিতে চলা মহিলা ভোটার থাকছেন। এবার ভারতের সাধারণ নির্বাচনে ১ কোটি ৮২ লক্ষাধিক নতুন ভোটার থাকছেন। এবার মোট নথিভুক্ত ভোটার ৯৬ কোটি ৬০ লক্ষ ভোটার।

 

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে দেশের প্রায় ৯৭ কোটি মানুষ ভোটাধিকার প্রয়োগ করার সুযোগ পাবেন। দেশের ২8টি রাজ্য ও ৮টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল মিলিয়ে মোট ৫৪৩টি আসনে লোকসভা ভোট হবে। দেশজুড়ে ১২ লক্ষ পোলিং বুথে ভোটগ্রহণ হবে। এবারও EVM-এই ভোটগ্রহণ হবে। উত্তরপ্রদেশে সবচেয়ে বেশী মোট ৮০টি লোকসভা আসন আছে। 

Load More

আগামী পাঁচ বছর কারা দেশে সিংহাসনে বসবে তা ঠিক হবে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে। সেই লোকসভা ভোটের দিন ঘোষণা করতে চলেছে নির্বাচন কমিশন। আজ, শনিবার দুপুর ৩টে থেকে সাংবাদিক সম্মেলনে ঘোষিত হবে সাধারণ নির্বাচনের নির্ঘণ্ট। ভারতের ২৮টি রাজ্য ও ৮টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল মিলিয়ে মোট ৫৪৩টি আসনে লোকসভা ভোট হবে। প্রায় ৯৭ কোটি মানুষ এবারের লোকসভা নির্বাচনে ভোটদান করার সুযোগ পাবেন। এবারও ইভিএমে ভোট নেওয়া হবে।পশ্চিমবঙ্গে ৪২টি লোকসভা নির্বাচনে ভোটগ্রহণ হবে।

ভোট স্বচ্ছ ও শান্তিপূর্ণ করার জন্য উদ্য়োগী নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এবার লোকসভা ভোটে জিতলে টানা তিনবার দেশের সিংহাসনে বসার নজির গড়বেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। লোকসভা ভোটের আগে হিন্দি বলয়ের তিন রাজ্যে-মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান ও ছত্তিশগড়ে বিধানসভা নির্বাচনে জিতে বিজেপি বেশ ছন্দে। সেখানে দক্ষিণ ভারতের রাজ্যে দারুণ ফল করলেও হিন্দি বলয়ে মুছে যেতে চলা কংগ্রেস এখনও সেভাবে ছন্দে নেই। প্রায় রোজই কংগ্রেসের কোনও না কোনও নেতা বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন। তবে ভারত জোড়ো ন্যায় যাত্রায় বেরিয়ে রাহুল গান্ধী মানুষের কাছে পৌঁছতে পারছেন, পরিশ্রম করছেন। কংগ্রেসের বেশী কিছু রাজ্যস্তরের নেতাও মরিয়া চেষ্টা করছেন।

বিরোধীদের ইন্ডিয়া জোটে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আসন সমঝোতা না করলেও। কিংবা নীতীশ কুমার বিরোধী জোট ছেড়ে বেরিয়ে গিয়ে বিজেপি-র হাত ধরছেন। তবে হাত শিবিরের এক সময়ের চিরশত্রু আম আদমি পার্টি কিন্তু পঞ্জাব বাদে দিল্লি, গুজরাট সহ সব রাজ্যে কংগ্রেসের সঙ্গে আসন সমঝোতা করেছে। বিহারে আরজেডি, ঝাড়খণ্ডে জেএমএম, উত্তরপ্রদেশে সমাজবাদী পার্টি, মহারাষ্ট্রে শিবসেনা (উদ্ধভ ঠাকরে), এনসিপি (শরদ পাওয়ার)-এর সঙ্গেও কংগ্রেসের জোট গড়ার কথা প্রায় পাকা।