US is 'Certainly Looking at' Banning Chinese Apps: টিকটক-সহ চিনা অ্যাপ বন্ধের পথে আমেরিকা?
US Secretary of State Mike Pompeo (Photo Credits: AFP)

ওয়াশিংটন, ৭ জুলাই: টিকটক-সহ একাধিক চিনা সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপ বন্ধ করার বিষয়টি নিয়ে ভাবনাচিন্তা করছে হোয়াইট হাউজ। সম্ভবত ভারতের পথেই হাঁটতে চলেছে আমেরিকা। ফক্স নিউজের সঙ্গে সাক্ষাৎকারে আমেরিকার স্বরাষ্ট্রসচিব মাইক পম্পে জানিয়েছেন, টিকটক (TikTok)-সহ চিনের একাধিক সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাপ মার্কিন মুলুকে নিষিদ্ধ করার কথা বিবেচনা করছে হোয়াইট হাউস।

বিশ্বজুড়ে মারণ করোনাভাইরাস থাবা বসিয়েছে। বিশ্বের মধ্যে করোনা পরিস্থিতি সবথেকে খারাপ আমেরিকায়। এনিয়ে হামেশাই চিনের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। সম্ভবত সে বিষয়টি মাথায় রেখেই চিনা অ্যাপ বয়কটের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার পথে ট্রাম্প! অন্যদিকে, হংকংয়ের মার্কেট থেকে সরে যাচ্ছে টিকটক। আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই হংকংয়ে আর কাজ করবে না টিকটক। গুগল প্লে স্টোর এবং অ্যাপল প্লে স্টোর থেকে খুব শীঘ্রই সরে যাবে টিকটক অ্যাপটি। সম্প্রতি হংকংয়ে একটি জাতীয় নিরাপত্তা আইন পাস হওয়ার জেরেই নেওয়া হয়েছে এই সিদ্ধান্ত। আরও পড়ুন: Sourav Ganguly: ‘মহেন্দ্র সিং ধোনিকে পেয়ে খুশি ভারতীয় ক্রিকেট’, মাহির জন্মদিনে সৌরভ গাঙ্গুলি

লাদাখের গালভান উপত্যকায় প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখায় (এলএসি) ভারতীয় ও চিনা সৈন্যদের সহিংস সংঘর্ষের দু' সপ্তাহ পর ৫৯টি চিনা অ্যাপের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে কেন্দ্র। এর জেরে মাদার সংস্থা বাইটড্যান্স (ByteDance) প্রায় ৬০০ কোটি টাকা ক্ষতির মুখে পড়তে চলেছে। বাইটড্যান্সের তরফে এক সূত্রের খবর, গত কয়েক বছরে ভারতের বাজারে চিনা সংস্থাটি ১০০ কোটিরও বেশি টাকা লগ্নি করেছে। এই অ্যাপ নিষিদ্ধ হওয়ার বিষয়টি তাদের ব্যবসাকে ভার্চুয়ালি রুখে দেবে। সর্বোপরি একটা জিনিস তো মাথায় রাখতেই হবে যে টিকটক-সহ বাকি অ্যাপ নিষিদ্ধ হওয়ার কারণে বাইটড্যান্সের ক্ষতির পরিমাণ ৬০০ কোটি টাকা।