Maldives-India Row: মালদ্বীপ থেকে সেনা হটাও, চিন সফরের পরেই ভারতকে নির্দেশ প্রেসিডেন্ট মুইজ্জুর, দেওয়া হল ডেডলাইন
Photo Credits: FB

Maldives-India Row: ভারত-মালদ্বীপ বিতর্ক এবার আরও একধাপ এগল। আজ রবিবার মালদ্বীপের (Maldives) নয়া প্রেসিডেন্ট মহম্মদ মুইজ্জু (Maldives President Mohamed Muizzu) স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন, অবিলম্বে সেদেশ থেকে সেনা প্রত্যাহার করতে হবে ভারতকে। তার জন্যে বেঁধে দেওয়া হল নির্দিষ্ট সময়সীমাও। মালদ্বীপের রাষ্ট্রপতির হুঙ্কার, ভারতীয় সামরিক বাহিনীকে ১৫ মার্চের মধ্যে দেশ ছেড়ে চলে যেতে হবে।

মালদ্বীপে (Maldives) নবনির্বাচিত 'চিনপন্থী' রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ মুইজ্জু (Mohamed Muizzu) দিন কয়েক আগেই চিন (China) সফর সেরে এসেছেন। চিন সফরে গিয়ে তাঁর কণ্ঠে শোনা গিয়েছিল সে দেশের ভূয়সী প্রশংসা। বলেছিলেন, চিন হল মালদ্বীপের অত্যন্ত মূল্যবান বন্ধু। মালদ্বীপের উন্নতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে চিন। শি জিনপিংয়ের সঙ্গে সাক্ষাতের পরেই মইজ্জুর মালদ্বীপ থেকে ভারতীয় সেনা হটানোর নির্দেশ দুই দেশের কূটনীতিক সম্পর্কের আরও পতন ঘটাতে পারে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

বিগত কয়েক বছর ধরেই মালদ্বীপে (Maldives) ভারতীয় সেনার একটা ক্ষুদ্র অংশ মোতায়েন রয়েছে। যা মালদ্বীপের আগের সরকারের চাওয়াতেই হয়েছিল। সমুদ্র সুরক্ষা ছাড়াও বিভিন্ন সমস্যায় ভারতীয় সেনা বাহিনীকে পাশে পেতেই পূর্বের সরকার মালদ্বীপে ভারতের সেনা মোতায়েনের নির্দেশ দিয়েছিল। এদিকে গত নভেম্বরে মালদ্বীপে নতুন সরকার গড়ে উঠেছে। প্রেসিডেন্ট হিসাবে 'চিনপন্থী' মহম্মদ মুইজ্জু সরকার গঠন করেছে। তাঁর সরকারের তিন মন্ত্রীর বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর (Narendra Modi) লাক্ষাদ্বীপ সফর (Lakshadweep) এবং একই সঙ্গে ভারতকে নিয়ে 'অবমাননাকর' মন্তব্যের অভিযোগ ওঠে। সেই থেকেই দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক চরমে ওঠে। এরই মাঝে মালদ্বীপ প্রেসিডেন্টের ভারতীয় সেনা সরানোর নয়া নির্দেশে ভারত-মালদ্বীপ সম্পর্কের সমীকরণ কোথায় নিয়ে যায় তা দেখার।