Sandeshkhali: 'সব তৃণমূলের ষড়যন্ত্র', সন্দেশখালি স্টিং ভিডিয়ো প্রসঙ্গে মুখ খুললেন প্রতিবাদী গৃহবধূ তথা পদ্মপ্রার্থী রেখা পাত্র
Rekha Patra, BJP candidate from Basirhat (Photo Credits: X)

সন্দেশখালিতে (Sandeshkhali) মহিলাদের ধর্ষণের যে অভিযোগ উঠেছে তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে সেই সমস্ত অভিযোগ মিথ্যা, ভুয়ো, সাজানো! শনিবার দুপুর থেকে ভাইরাল একটি ভিডিয়ো ঘিরে তোলপাড় কাণ্ড। ভিডিয়ো-তে (যার সত্যতা যাচাই করেনি লেটেস্টলি মিডিয়া) দেখা যাওয়া ব্যক্তি সন্দেশখালি ২ ব্লকের বিজেপির 'মণ্ডল সভাপতি' গঙ্গাধর কয়াল। গোপন ক্যামেরা সামনেই তিনি দাবি করেছেন, সন্দেশখালির ধর্ষণ-সহ বিভিন্ন অভিযোগ পূর্ব পরিকল্পিত, সাজানো। পাশাপাশি তিনি স্বীকার করেছেন, সন্দেশখালিতে টাকা দিয়ে ধর্ষণের অভিযোগে এত দিনের একটা আন্দোলন সাজানো হয়েছিল। পুরো পরিকল্পনার কৃতিত্ব গঙ্গাধর দিয়েছেন বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারীকে (Suvendu Adhikari)। তবে সন্দেশখালির ভিডিয়ো (Sandeshkhali Sting Operation) প্রসঙ্গে মুখ এবার খুললেন প্রতিবাদী গৃহবধূ রেখা পাত্র (Rekha Patra)। বললেন, সমস্তটাই তৃণমূলের ষড়যন্ত্র।

শাহজাহান বাহিনীর বিরুদ্ধে দিনের পর দিন ধর্ষণের অভিযোগ সবার প্রথম লিখিয়েছিলেন রেখাই। তারপর একে একে এগিয়ে এসেছিলেন সন্দেশখালির অন্যান্য মহিলারা। প্রতিবাদের প্রতীকী হিসেবে সন্দেশখালির গৃহবধূ রেখাকে বসিরহাট লোকসভা আসনের টিকিট দিয়েছে বিজেপি। শনিবার ফাঁস হওয়া ভিডিয়ো ঘিরে পদ্মপ্রার্থী বললেন, ভয় দেখিয়ে, চাপ দিয়ে গঙ্গাধরকে দিয়ে এই সমস্ত কথা বলানো হয়েছে।

অন্যদিকে সন্দেশখালির স্টিং অপারেশনকাণ্ড (Sandeshkhali Sting Operation) ঘিরে শনিবার সন্ধ্যায় দলীয় কার্যালয়ে সাংবাদিক বৈঠকে ডাকেন বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ শমীক ভট্টাচার্য। সাংবাদিক বৈঠক থেকে তিনি বললেন, শুভেন্দুর ভাবমূর্তি কালিমালিপ্ত করতে এই স্টিং অপারেশন করা হয়েছে। ভাইরাল হওয়া ওই ভিডিয়োটি ভুয়ো তা এখনও বিজেপির কোনও নেতা দাবি করেননি। দলের তরফে বার বার দাবি করা হচ্ছে, গঙ্গাধর কয়াল মানসিক দিক থেকে সুস্থ নয়। এও বলা হয়েছে, তিনি সন্দেশখালি ২ ব্লকের বিজেপির মণ্ডল সভাপতি পদেও নেই। গঙ্গাধর কেবল বিজেপির একজন সমর্থক মাত্র। ওই ভিডিয়োর সিবিআই তদন্তের দাবিও জানানো হয়েছে দলের তরফে। এমনকি যে গঙ্গাধর শনিবার সকাল অবধি বলেছেন ভিডিয়োর গলা তাঁর, সন্ধ্যায় ডিগবাজি খেয়ে জানালেন, তাঁর কণ্ঠস্বর বিকৃত করে এই ভিডিয়ো বানানো হয়েছে।