বিশ্বের এমন পাঁচটা জায়গা যেখানে বজ্রপাত সবচেয়ে বেশি হয়
এসব জায়গায় বাজ খুব বেশি পড়ে। (ফাইল ছবি)

কালবৈশাখী (Kalbaisakhi)-র মরসুম চলে গেল। প্রচন্ড গরমের মাঝে এখন বৃষ্টির অপেক্ষা। আগামী মাসে বর্ষাও আসার কথা। গত বছর বর্ষায় কলকাতায় রেকর্ড সংখ্যাক বজ্রপাতের ঘটনা ঘটেছিল। শহরে বাজ পড়ে মৃত্যুর ঘটনাও ঘটেছিল। আসুন এই প্রতিবেদনে দেখে নিই সবচেয়ে বেশি বাজ পড়া বিশ্বের পাঁচ জায়গার কথা--

৫) ডাগার, পাকিস্তান (Daggar Pakistan)

পাকিস্তানের এই অঞ্চলে খুব বজ্রপাত হয়।

ডাগার, পাকিস্তান। (File Photo)

৪) কাকেরেস, কলম্বিয়া (El Tarra, Colombia)

দক্ষিণ আমেরিকার এই দেশের কাকরেস অঞ্চলে ভয়ানক বজ্রপাতের ছবি তোলার বিশ্বের ফোটোগ্রাফাররা হাজির হন। কাকরেসের বজ্রপাতের বৈশিষ্ট্য হল এই বাজের আলো অনেকক্ষণ স্থায়ী হয়।

কাকেরেস, কলম্বিয়া। (File Photo)

৩) কাম্পেনে, কঙ্গো

সারা দিনের কোনও না কোনও সময়ে এখানে বজ্রপাত হয়েই থাকে।

২) কিফুকা, কঙ্গো

একটা সময় দুনিয়ার সবচেয়ে বজ্রপাত হওয়ার রেকর্ডটা এখানকার দখলেই ছিল।

কিফুকা, কঙ্গো (File Photo)

১) মারাকাইবো লেক, ভেনেজুয়েলা

বিশ্বে ভেনেজুয়েলার মারাকাইবো লেক হল এমন একটি স্থান যেখানে সব থেকে বেশি সময় বিদ্যুৎ চমকাতে ও বাজ পড়তে দেখা যায়। বছরের ৩৬৫ দিনের মধ্যে ৩০০ দিনই ভেনেজুয়েলার মারাকাইবো লেকের আকাশে বজ্রপাত হয়। বছরে ৩০০ দিন ঝড়, মিনিটে ২৮বার বজ্রপাত। যার কারণে, গিনেস বুকে ওয়ার্ল্ড রেকর্ডের তালিকায় একটি স্থানও অর্জন করে ফেলেছে ভেনেজুয়েলার মারাকাইবো লেক। হিসেবে দেখা গেছে মিনিটে এখানে গড়ে প্রায় ২৮ বার বাজ পড়ে। তাঁর সৌজন্যেই ২০১৫-য় গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসে নাম উঠেছে 'ক্যাটাটুম্বো লাইটনিং'-এর। এর আগে এই রেকর্ড কঙ্গোর কিফুকা শহরের দখলে ছিল।