Gotabaya Rajapaksa Flees To Maldives: 'দেশ ছাড়তে গোতাবায়া রাজাপাক্ষেকে সাহায্য করেছে ভারত', সংবাদমাধ্যমের দাবি ওড়াল হাই কমিশন
Gotabaya Rajapaksa (Photo: Twitter)

কলম্বো, ১৩ জুলাই: সামরিক বিমানে চড়ে দেশ ছেড়ে মালদ্বীপে (Maldives) পালিয়েছেন শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতি গোতাবায়া রাজাপাক্ষে (Sri Lankan President Gotabaya Rajapaksa)। শ্রীলঙ্কার প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের অনুমোদনের পরেই ১৩ জুলাই ভোরে রাষ্ট্রপতি, তাঁর স্ত্রী এবং দু'জন দেহরক্ষীকে নিয়ে সেনা বিমান মালদ্বীপের উদ্দেশে রওনা দেয়। কাতুনায়াকে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে উড়েছিল বিমানটি। এর জন্য প্রয়োজনীয় ইমিগ্রেশন, শুল্ক এবং অন্যান্য সমস্ত বিষয়ে প্রতিরক্ষা মন্ত্রক (Ministry of Defense) অনুমোদন দিয়েছিল।

এদিকে, কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয় যে দেশ থেকে পালানোর জন্য রাজাপাক্ষেকে সহায়তা করেছে ভারত। যদিও সেই দাবি উড়িয়ে দিয়েছে শ্রীলঙ্কায় ভারতীয় হাই কমিশন (Indian High Commission In Sri Lanka)। এক বিবৃতিতে হাই কমিশন বলেছে, "শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতি গোতাবায়া রাজাপাক্ষেকে শ্রীলঙ্কার বাইরে যাওয়ার জন্য ভারত সহায়তা করেছে, কয়েকটি সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত এই রিপোর্ট ভারতীয় হাই কমিশন স্পষ্টতই ভিত্তিহীন এবং অনুমানমূলক। এটি পুনরায় উল্লেখ করা হচ্ছে যে ভারত শ্রীলঙ্কার জনগণকে সমর্থন দেওয়া অব্যাহত রাখবে। যেহেতু তারা সমৃদ্ধি এবং অগ্রগতির জন্য গণতান্ত্রিক উপায় এবং মূল্যবোধের মাধ্যমে সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান এবং সাংবিধানিক কাঠামো প্রতিষ্ঠিত করার চেষ্টা করছে।" আরও পড়ুন: Gotabaya Rajapaksa Flees To Maldives: সামরিক বাহিনীর বিমানে চড়েই মালদ্বীপে গোতাবায়া রাজাপাক্ষে, সঙ্গী স্ত্রী ও ২ দেহরক্ষী

সূত্রের খবর, অ্যান্টোনভ-২২ সামরিক বিমানে চেপে দেশ ছাড়েন গোতাবায়া। শ্রীলঙ্কার বায়ু সেনার মিডিয়া ডিরেক্টর (Sri Lankan Air Force Media Director) এক বিবৃতিতে বলেছেন, "শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতি, তাঁর স্ত্রী ও ২ জন দেহরক্ষীকে মালদ্বীপে উড়ানোর জন্য ইমিগ্রেশন, শুল্ক এবং অন্যান্য বিষয়ে অনুমোদন দিয়েছিল প্রতিরক্ষা মন্ত্রক। ১৩ জুলাই ভোরে এয়ার ফোর্সের বিমানে তাঁদের মালদ্বীপে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।" শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ও নিশ্চিত করেছে যে রাষ্ট্রপতি গোতাবায়া রাজাপাক্ষে দেশ ছেড়ে চলে গিয়েছেন। মালদ্বীপের ভেলানা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেছিল রাজাপাক্ষের বিমান। মালদ্বীপে পৌঁছে পুলিশি নিরাপত্তায় তাঁরা অজানা স্থানে চলে যান।

সোমবারই রাজাপাক্ষে পদত্যাগ পত্রে স্বাক্ষর করেছেন। যা আজ সংসদের স্পিকারের হাতে তুলে দেওয়া হবে। নতুন রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত না হওয়া পর্যন্ত সাময়িক সময়ের জন্য রাষ্ট্রপতির পদে বসবেন প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রমসিংহ। ২০ জুলাই সংসদে তিনি শপথ নিতে পারেন। ১৯ জুলাই রাষ্ট্রপতি পদে মনোনয়নের আহ্বান জানানো হবে। সূত্র বলছে যে শ্রীলঙ্কার সংসদ নতুন রাষ্ট্রপতির নাম চূড়ান্ত করতে একটি বিশেষ অধিবেশন ডাকা হবে।