Narada Case: নারদা মামলায় মমতা বন্দোপাধ্যায় ও মলয় ঘটকের আবেদনের আর্জিতে মান্যতা সুপ্রিম কোর্টের
সুপ্রিম কোর্ট (Photo Credits: IANS)

নতুন দিল্লি, ২৫ জুন: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় (CM Mamata Banerjee) এবং আইনমন্ত্রী মলয় ঘটককে (Law Minister Malay Ghatak) আগামী ২৮ জুনের মধ্যে নারদা মামলায় (Narada Case) আবেদনের আর্জিতে মান্যতা দিল সুপ্রিম কোর্ট (Supreme Court)। নারদা মামলায় অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের দিন তাঁদের সেখানে কী ভূমিকা ছিল তা নিয়ে অভিযোগ দায়ের করা পাল্টা হলফনামা সংক্রান্ত আবেদন জমা দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট।

আগামী ২৯ জুন হাইকোর্টের বৃহত্তর বেঞ্চে নারদা মামলার শুনানি রয়েছে। আবেদনের কপি ২৮ তারিখের মধ্যে জমা দিতে হবে। গত ৯ জুন কলকাতা হাইকোর্ট মুখ্যমন্ত্রী ও আইনমন্ত্রীকে জানায়, হলফনামা জমা নেওয়া হবে না। এরই পরিপ্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্টে যান মমতা বন্দোপাধ্যায় ও মলয় ঘটক।

গত মে মাসে নারদা মামলায় তৃণমূল কংগ্রেসের ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায় মদন মিত্র ও কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেপ্তার করে সিবিআই। এরপরই আইনমন্ত্রীকে সঙ্গে নিয়ে নিজাম প্যালেসে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে প্রায় ৬ ঘণ্টা ছিলেন তিনি। নিজাম প্যালেসের বাইরের কর্মী সমর্থকের ভিড় সামাল দিতে বাহিনী মোতায়েন করতে হয়। গোটা ঘটনাতে ক্ষুব্ধ হয় খুব সিবিআই। যার জেরে কেন্দ্রীয় সংস্থা অভিযোগ জানায়, প্রভাবশালী নেতাদের গ্রেপ্তারির প্রতিবাদ করছে দল। সিবিআই আধিকারিকদের হুমকিও দেওয়া হয় বলে তাদের অভিযোগ।

এই প্রেক্ষিতেই তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। শুনানিতে মমতা ও মলয় ঘটকের হলফনামা নেওয়া হয়নি। তাই মলয় ঘটক ও রাজ্য সরকারের পক্ষে হাইকোর্টে সওয়াল করেছিলেন প্রবীণ আইনজীবী রাকেশ দ্বিবেদী ও বিকাশ সিংহ। তাঁরা বলেন, অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারির দিনে মমতা বন্দোপাধ্যায় ও মলয় ঘটকের হলফনামা হাইকোর্টের রেকর্ড করা প্রয়োজন।