Nirbhaya Case: কেন্দ্রের আবেদন, সুপ্রিম কোর্টে  নির্ভয়ার ৪ ধর্ষক খুনির পৃথক ফাঁসির শুনানি মঙ্গলবার
নির্ভয়া মামলার চার ধর্ষক-খুনি (Photo Credits: IANS)

নতুন দিল্লি, ৭ ফেব্রুয়ারি: প্রথমে ২২ জানুয়ারি, পরে ১ ফেব্রুয়ারি। তাতেও নির্ভয়ার (Nirbhaya case) ধর্ষক খুনিদের ফাঁসির সাজা কার্যকরী হল না। বরং আইনি সাহায্যের জন্যা তারা ফের এক সপ্তাহ সময় পেয়েছে। সেই সময়ের মধ্যেই আগামী মঙ্গলবার চারজনের পৃথক ফাঁসির আর্জির শুনানি হতে চলেছে দেশের শীর্ষ আদালতে। সরকার নির্ভয়ার ধর্ষকদের মৃত্যুদণ্ডে স্থগিতাদেশের বিরুদ্ধে যে পিটিশন দাখিল করেছিল তা খারিজ করে দিয়েছিল দিল্লি হাইকোর্ট। সেই রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হয়েছে কেন্দ্র। সরকার চেয়েছিল চার অপরাধীকে নোটিশ পাঠাক আদালত। তবে তাতে ফাঁসির প্রক্রিয়া আরও বিলম্বিত হবে বলে জানায় বিচারপতি আর ভানুমতীর নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ। সরকার পক্ষের আইনজীবী তুষার মেহতা আদালতে বলেন, “দেশের ধৈর্যের পরীক্ষা হয়েছে যথেষ্ট। এ ব্যাপারে এবার হস্তক্ষেপ করুক সুপ্রিম কোর্ট।”

উল্লেখ্য, নির্ভয়ার চার ধর্ষক ও খুনিকে পৃথকভাবে ফাঁসি দেওয়ার আরজি জানিয়েছিল কেন্দ্র। সুপ্রিম কোর্টে আগামী মঙ্গলবার সেই পিটিশনের শুনানি হবে। এর আগে সুপ্রিম কোর্ট মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি পবন কুমার গুপ্তার রিভিউ পিটিশন খারিজ করে দিয়েছে। ২০১২ সালে ধর্ষণ ও খুনের ঘটনার সময় সে নাবালক ছিল বলে দাবি করে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানায় পবন। কয়েদিন আগেই সেই আবেদন খারিজ করে দেয় শীর্ষ আদালত। আজ ফের সুপ্রিম কোর্টে রিভিউ পিটিশন দায়ের করে পবন। আজও তার আবেদন খারিজ হয়ে যায়। সুপ্রিম কোর্ট বলেছে যে একবার প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে, বারবার বয়স নিয়ে আইনি লড়াই করা যায় না। আরও পড়ুন-Jammu & Kashmir: পুলওয়ামা উরির ছকে হামলা চালাতে বালাকোটে প্রশিক্ষণ নিচ্ছে ২৭জন জঙ্গি, সতর্ক করল এনআইএ

২০১২ সালে ২৩ বছরের ছাত্রীকে নৃশংসভাবে গণধর্ষণ ও খুনের ঘটনায় মৃত্যুদণ্ড হয়েছে চার অপরাধী বিনয় শর্মা, পবন গুপ্তা, মুকেশ সিং ও অক্ষয় সিঙের। ১ ফেব্রুয়ারি তাদের ফাঁসি হওয়ার কথা ছিল। তবে ফাঁসি এড়াতে একে একে তত্‍‌পরতা চালিয়ে যায় চার অপরাধী। বিনয় শর্মা রাষ্ট্রপতি রাম নাথ কোবিন্দের কাছে প্রাণভিক্ষার আর্জি জানানোর পর অনির্দিষ্টকালের জন্য ফাঁসিতে স্থগিতাদেশ দেয় দিল্লির ট্রায়াল কোর্ট। বিনয়ের আর্জি খারিজ হয়ে যাওয়ার পর প্রাণভিক্ষার আবেদন জানায় মুকেশ। অপরাধীরা ফাঁসি এড়াতে সব রকমভাবে চেষ্টা চালাচ্ছে বলে জানায় সরকার।