Demonetisation 3rd Anniversary: বাতিল করা হোক ২০০০ টাকার নোট, বিমুদ্রাকরণের তৃতীয় বর্ষে এই দাবি তুললেন অর্থমন্ত্রকের প্রাক্তন সচিব এস সি গর্গ
এস সি গর্গ (Photo Credits: PTI)

নতুন দিল্লি, ৮ নভেম্বর: বাজারে থাকলেও  কমেছে ২০০০ টাকার নোটের ব্যবহার। তাই বাতিল করা হোক ২০০০ টাকার নোট এই দাবি তুললেন  অর্থমন্ত্রকের প্রাক্তন সচিব (Ex Finance Affairs Secretary) এস সি গর্গ (S C Garg)। তিনবছর আগে আজকের দিনেই ৫০০ ও ১০০০ টাকার নোট বাতিল করেছিল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সরকার (PM Narendra Modi)। প্রধানমন্ত্রী সেদিন জানিয়েছিলেন, নোট বাতিলের ফলে কালো টাকা উদ্ধার হবে, ডিজিটাল পেমেন্ট বৃদ্ধি পাবে এবং নগদ টাকার ব্যবহার কমবে। কিন্তু আদতে কোনোটাই সফল হয়নি বলে মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি জানিয়েছেন, 'এখনও পর্যন্ত প্রচুর নগদ টাকার (Cash Money) লেনদেন চলছে। বিপুল পরিমান দু' হাজার টাকার নোট এখনও সঞ্চয় করে রাখা রয়েছে। ডিজিটাল লেনদেনের ক্ষেত্রে অন্য দেশের তুলনায় ভারতবর্ষ এবিষয়ে অনেকটাই পিছিয়ে রয়েছে। তিনি আরও বলেন, ' ২০০০ টাকার নোট এখন কোথাও ব্যবহার হয় না। লেনদেনের জন্য ২ ০০০ টাকার নোট তুলে নেওয়া হয়েছে।' আরও পড়ুন, 'নিরর্থক কাজ, অর্থনীতির বিপর্যয় সেই দিন শুরু হয়েছিল', নোটবাতিলের তিন বছরে কেন্দ্রীয় সরকারকে আক্রমণ মমতা ব্যানার্জির

ভারতবর্ষে এখনও ৮৫% মানুষ নগদ টাকা দিয়েই লেনদেন করছে। ছোটোখাটো ক্রয়-বিক্রয়ের জন্য নগদ টাকাই এখনও পর্যন্ত মানুষের কাছে সবচেয়ে বেশি সুবিধাযোগ্য এবং গ্রহণযোগ্য। একমাত্র চিনে ৮৭% লেনদেন ডিজিটাল মাধ্যমে হয়। যেখানে ভারতে মাত্র ১২% মানুষ ডিজিটাল লেনদেন করে। ফলে নোট বাতিলের যে কারণটি প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন তা একেবারেই সফল হয়নি বলে জানিয়েছেন প্রাক্তন অর্থমন্ত্রকের সচিব।

আজ বিমুদ্রাকরণের তিনবছর পূর্তিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি থেকে বিপক্ষ রাজনৈতিক দলগুলি এর অসফলতা নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে আক্রমণ করে।