MHA to State: রাজ্যেকে রাজ্যের ভিতরে ও বাইরে ব্যক্তি এবং পণ্যসামগ্রী চলাচলে বিধিনিষেধ তুলে নেওয়ার নির্দেশ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের
লকডাউন (Photo Credits: IANS)

নতুন দিল্লি, ২২ অগস্ট: দেশজুড়ে আনলকের (Unlock) প্রক্রিয়া চলছে। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক (MHA) সমস্ত রাজ্যকে ব্যক্তি ও সামগ্রীর রাজ্যের মধ্যে এবং রাজ্যের বাইরে চলাচলে কোনও বিধিনিষেধ না রাখার বিষয়টি নিশ্চিত করতে বলেছে। সমস্ত রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলগুলির প্রধান সচিবদের সঙ্গে এক সংলাপে, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব অজয় ​​ভাল্লা বলেছিলেন, বিভিন্ন জেলা ও রাজ্যগুলির দ্বারা স্থানীয় স্তরের চলাচলে বিধিনিষেধ আরোপ করা হচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

আনলক ৩-এর নির্দেশিকার দিকে দৃষ্টি আকর্ষণ করে ভাল্লা বলেন, এই জাতীয় বিধিনিষেধ পণ্য ও পরিষেবার রাজ্যের মধ্যে চলাচলে সমস্যা সৃষ্টি করছে এবং সামগ্রী সরবরাহ করার ক্ষেত্রেও সমস্যা হচ্ছে, যার ফলে অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড ও কর্মসংস্থান ব্যাহত হচ্ছে। তিনি এই চিঠিতে বলেছেন, আনলক নির্দেশিকাতে স্পষ্টভাবে বলা হয়েছে যে ব্যক্তি ও পণ্যাদির রাজ্যের মধ্যে ও রাজ্যের বাইরে চলাচলে কোনও বিধিনিষেধ থাকবে না। আরও পড়ুন, দিল্লিতে ধৃত সন্দেহভাজন আইএসআইএস জঙ্গি, উদ্ধার বিস্ফোরক

নির্দেশিকাতে আরও বলা হয়েছে, প্রতিবেশী দেশগুলির সঙ্গে চুক্তি অনুসারে, আন্তঃসীমান্ত সীমান্ত বাণিজ্যের জন্য ব্যক্তি ও পণ্য পরিবহনের জন্য পৃথক অনুমতি, অনুমোদন বা ই-পারমিটের প্রয়োজন হবে না। স্বরাষ্ট্র সচিব বলেন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা আইন, ২০০৫ এর বিধান অনুসারে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক দ্বারা জারি করা নির্দেশিকা লঙ্ঘনের পরিমাণ সীমাবদ্ধতা। চিঠিতে অনুরোধ করা হয়েছিল যে কোনও বিধিনিষেধ চাপানো হবে না এবং তা নিশ্চিত করা উচিত যে আনলক নির্দেশিকাটি অনুসরণ করা হয়। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি করোনভাইরাস মহামারী মোকাবিলায় ২৫মার্চ থেকে প্রথমে লকডাউন ঘোষণা করেছিলেন যা পরবর্তী সময়ে ৩১ মে পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছিল। ১ জুন থেকে সারাদেশে শিল্প কার্যক্রম এবং অফিস খোলার মাধ্যমে আনলক প্রক্রিয়া শুরু হয়। মনে করা হচ্ছে আনলকের পরবর্তী পর্যায়ে খুলে যেতে পারে সিনেমা হলগুলিও।