Hillary Clinton: ‘যাই ঘটে যাক না কেন ৩ নভেম্বর রাতে হার স্বীকার করবেন না’, প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বিডেনকে কী বললেন হিলারি ক্লিন্টন?
হিলারি ক্লিন্টন (PTI/FILE Photo)

ওয়াশিংটন, ২৬ আগস্ট: নভেম্বরেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র প্রেসিডেন্ট নির্বাচন। ইতিমধ্যে নির্ঘণ্ট প্রকাশিত হয়েছে। এদিকে করোনা কালে ক্ষমতা ধরে রাখতে ট্রাম্প শিবিরে তৎপরতাও বেড়েছে। নির্বাচনে ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বি ডেমোক্র্যাট শিবিরের জো বিডেন। তিনিই প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হিসেবে নির্বাচনে লড়বেন। এনিয়ে প্রচারও প্রায় শুরু হয়ে গিয়েছে। এবার আসন্ন নির্বাচন উপলক্ষে জো বিডেকে সামান্য পরামর্শ দিলেন ২০১৬-তে পডেমোক্র্যাটের প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী হিলারি ক্লিন্টন (Hillary Clinton)। যিনি ততৎকালীন রিপাবলিকান প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্পের কাছে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় হেরে যান। জো বিডেনকে উদ্দেশ্য করে এদিন হিলারি ক্লিন্টন বলেন, যা কিছুই ঘটে যাক না কেন ৩ নভেম্বর রাতে কোনওভাবেই হার স্বীকার করবেন না। যতক্ষণ না ভোট গণনা পুরোপুরি সম্পন্ন হচ্ছে, ততক্ষণ শক্ত হাতে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় থাকবেন।

মহামারী করোনাভাইরাসের থাবায় বিশ্বের সবথেকে বিপর্যস্ত দেশটির নাম আমেরিকা। সেখানে দেকেনও পর্যন্ত মৃত দেড় লক্ষেরও বেশি। আক্রান্ত অগুন্তি। এদিকে চলতি বছরের নভেম্বরেই মার্কিন মুলুকে হাইপ্রোফাইল নির্বাচন। হোয়াইট হাউসের গদিতে ডোনাল্ড ট্রাম্প ফিরবেন, নাকি জো বিডেন পাশা উল্টে দেবেন, এখন সেটাই দেখার। তবে সংক্রমণের বাড়াবাড়িতে এবার বহু মার্কিন নাগরিক ই-মেলের মাধ্যমেই তাঁদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন বলে খবর। তবে সেদেশের সমস্ত রাজ্যে ও সেখানকার কর্মীদের মধ্যে যতটা ব্যক্তিগত ভোট গণনার অভিজ্ঞতা রয়েছে ততটা মেল ব্যালট গণনা করার দক্ষতা নেই। আরও পড়ুন-Earthquake In West Bengal: দুর্গাপুরে ভূমিকম্প, সাতসকালে কাঁপল পশ্চিম বর্ধমানের এই শহর

জো বিডেনকে পরামর্শ হিলারি ক্লিন্টনের

এদিন প্রাক্তন ইউএস সেক্রেটারি অফ স্টেট হিলারি ক্লিন্টন শো-টাইমসে ‘দ্য সার্কাস’ এপিসোডে নিজের সাক্ষাৎকার দিচ্ছিলেন। সেখানেই তিনি ডেমোক্র্যাট প্রেসিডেন্ট পদপ্রার্থী জো বিডেনের উদ্দেশ্যে একথা বলেন। সম্ভবত আগামীকাল বৃহস্পতিবার রিপাবলিকান পার্টির তরফে সরকারিভাবে আগামী প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে প্রার্থীর হওয়ার মনোনয়ন গ্রহণ করবেন। তবে তার আগে করোনার কোপে সংক্রমণ তাড়াতে যে মেল ভোটিংয়ের বন্দোবস্ত হয়েছে, তানিয়ে তীব্র সমালোচনা করেছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। কেননা ই-মেলের ভোট গণনা অনেকটাই সময়সাপেক্ষ। এর জেরে নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করতে দেরি হবে, যা ট্রাম্পের না পসন্দ।